একটি পাহাড়ি কন্যার চিত্রাঙ্কন ।। অরিজিনাল আর্টওয়ার্ক

in hive-129948 •  2 months ago 
হ্যালো বন্ধুরা, সবাই কেমন আছেন? আশা করি সবাই ভালো আছেন। সবাইকে আন্তরিক শুভেচ্ছা জানিয়ে আজকের ব্লগটি শুরু করছি।

সপ্তাহখানিক বাদে আজকে আবার আপনাদের সাথে একটা নতুন অঙ্কনের বিষয় শেয়ার করে নেবো। আজকে আমি একটা পাহাড়ি কন্যার অঙ্কন করার চেষ্টা করেছি। এই অঙ্কনটা আসলে একপ্রকার হঠাৎ করে করা হয়েছে বলতে গেলে কারণ কালকে মাঝ রাতের দিকে হঠাৎ কি করে যেন মনে পাহাড়ি কন্যার বিষয়টা উদয় হলো। আমি আসলে অঙ্কন করার বিষয়ে চিন্তায় বসলে যেটা মনের মধ্যে হুট করে চলে আসে তখন সেটা নিয়েই বসে পড়ি। সকালে সময় পাবো না বলে কালে রাতে তাড়াতাড়ি করে অঙ্কনটা করেছিলাম। আসলে একেতে অতো রাত তারপর তাড়াতাড়ি করে সবকিছু করা, তারপরও মোটামুটি করে তোলার চেষ্টা করেছি বিষয়গুলো। আশা করি অঙ্কনটা আপনাদের কাছে ভালো লাগবে।


☬উপকরণ:☬

আর্ট পেপার
বোর্ড
স্কেচ পেন্সিল
পেন
কালার পেন্সিল
রাবার

✎এখন অঙ্কনের ধাপগুলো নিচের দিকে তুলে ধরবো---

➤প্রথম ধাপে পাহাড়ি কন্যাটির গলার থেকে সম্পূর্ণ বডি শাড়িসহ এবং হাত, পা অঙ্কন করে নিয়েছিলাম। এরপর গলায় একটা হার মতো দেখতে অঙ্কন করে দিয়েছিলাম এবং বসার মতো অবস্থায় আছে এমনটা তুলে ধরেছি।

➤দ্বিতীয় ধাপে মুখমন্ডলটা সম্পূর্ণভাবে তৈরি করে নিয়েছিলাম এবং মাথায় চুল অঙ্কন করে দিয়েছিলাম। এরপর যেখানে বসে আছে সেখানে লম্বা মতো একটা কাঠের গুঁড়ি মতো দেখতে অঙ্কন করে দিয়েছিলাম।

➤তৃতীয় ধাপে পেনের কালী দিয়ে অঙ্কনের সমস্ত বিষয়কে ভালোভাবে ফুটিয়ে তুলেছিলাম এবং পিছনে বাঁধা চুলের অংশটা কালার করে দিয়েছিলাম গাঢ় ভাবে।

➤চতুর্থ ধাপে মাথায় বাকি চুলের সমস্ত অংশে ভালোভাবে গাঢ় করে কালো কালী করে দিয়েছিলাম।

➤পঞ্চম ধাপে মুখমণ্ডলটাকে ভালোভাবে কালার করে নিয়েছিলাম।

➤ষষ্ঠ ধাপে গলার অংশে এবং গলায় যে হার মতো অংশ আছে সেটাতে কালার করে দিয়েছিলাম।

➤সপ্তম ধাপে কন্যাটির দুটি হাত এবং ব্লাউজে কালার করে দিয়েছিলাম।

➤অষ্টম ধাপে শাড়ির অর্ধাংশে কালার করে দিয়েছিলাম এবং শাড়ির বোর্ডারগুলোতেও হালকা করে রং টেনে দিয়েছিলাম।

➤নবম ধাপে শাড়ির বাকি অর্ধাংশে কালার দিয়ে সম্পন্ন করে দিয়েছিলাম।

➤দশম ধাপে কন্যাটির পায়ের দিকে কালার করে দিয়েছিলাম এবং কাঠের গুঁড়ি মতো অংশে হালকা করে কালার করে দিয়েছিলাম।

➤একাদশ ধাপে কাঠের গুঁড়িটাতে হালকা কালারের উপর দিয়ে ডিপ কালার করে দিয়েছিলাম পরে।

➤দ্বাদশ ধাপে একটু আশেপাশে হালকাপাতলা ডিসাইন মতো করে দিয়েছিলাম আর অঙ্কনটার এখানেই ইতি টেনেছিলাম।

আর্ট বাই, @winkles

শুভেচ্ছান্তে, @winkles


Support @heroism Initiative by Delegating your Steem Power

250 SP500 SP1000 SP2000 SP5000 SP

Heroism_3rd.png

Authors get paid when people like you upvote their post.
If you enjoyed what you read here, create your account today and start earning FREE STEEM!
Sort Order:  

দাদা,পাহাড়ি কন্যার চিত্রাঙ্কনটি জাস্ট অসাধারণ হয়েছে।আসলে আপনার অঙ্কন থেকে প্রতি সময় নতুন নতুন নতুন ধারনা পাই আর নতুন নতুন অঙ্কন দেখে ও মন ভালো লাগে।আপনার চিত্রাঙ্কন অনেক সুন্দর ও নিখুঁত হয় ।আর আমার কাছে ভালো লাগে রঙের কম্বিনেশন ,খুবই দক্ষতা দিয়ে ফুটিয়ে তুলেছেন আপনি।পাহাড়ি কন্যার বসে থাকার ভঙ্গিমা আমার কাছে বেশ লেগেছে।ধন্যবাদ দাদা,ভালো থাকবেন।শুভকামনা রইলো আপনার জন্য।

পাহাড়ি কন্যার চিত্রাঙ্কন অসাধারণ হয়েছে দাদা। এর আগেও আপনার অংকন চিত্র দেখেছি। খুবই নিখুঁতভাবে আপনি আপনার অংকন চিত্র গুলো করেন। আপনার অংকন চিত্র গুলো দেখে মনে হয় যেন একজন দক্ষ অংকন শিল্পী এই চিত্রটি অংকন করেছে। সত্যি দাদা আপনি যেমন ভালো চিত্র অংকন করেন তেমনি ভালো রেসিপি তৈরি করেন। আপনার অংকন দেখলে মনে হয় যেন মায়া মিশে আছে। নিখুঁতভাবে এই চিত্রটি অংকন করেছেন। মাঝে মাঝে আপনার অংকন চিত্র দেখে বড়ই আফসোস হয় দাদা। আমি যদি এরকম চিত্র অংকন করতে পারতাম তাহলে খুবই ভালো হতো। অসাধারণ একটি চিত্র আমাদের মাঝে শেয়ার করার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

দাদা আপনি খুবই চমৎকার ভাবে একটি পাহাড়ি কন্যার চিত্রাঙ্কন ।আমাদের মাঝে উপস্থাপন করেছেন যেটা দেখে আমি অভিভূত হয়েছি।বিশেষ করে মেয়ে রিপার ও বেগুনি রঙের শাড়িটা আমার কাছে দারুন লেগেছে।সেই সাথে চুলের খোপা টি কি অসাধারণ করে রেখেছেন।সব মিলিয়ে খুবই চমৎকার হয়েছে আপনার এই চিত্রাংকনটি।এত চমৎকার একটি চিত্রাংকন আমাদের সাথে শেয়ার করে নেয়ার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি আপনার প্রতি।

আমি আসলে অঙ্কন করার বিষয়ে চিন্তায় বসলে যেটা মনের মধ্যে হুট করে চলে আসে তখন সেটা নিয়েই বসে পড়ি।

শিল্পীর হাতের ছোঁয়ায় এবং দক্ষতায় এক পাহাড়ি ললনার অপরূপ সৌন্দর্যের চিত্র ফুটে উঠেছে দাদা। সত্যি দাদা আপনি একজন প্রফেশনাল চিত্রশিল্পীর মতই আপনার চিত্রকর্মগুলো উপস্থাপন করেন। এই পাহাড়ি ললনার চিত্রটি এক কথায় অসাধারণ হয়েছে। যখন আমরা কোন কিছু নিয়ে চিন্তা করি তখন আমাদের চিন্তাধারা কল্পনার রাজ্যে নিজেদেরকে ভাসিয়ে নিয়ে যায়। আর সেই কল্পনা থেকে দারুণ দারুণ সব চিত্রগুলো ফুটে উঠে। দাদা আপনি চমৎকার এই চিত্র অঙ্কন করে সকলের মাঝে শেয়ার করেছেন এজন্য আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ জানাচ্ছি। সেই সাথে আপনার জন্য শুভকামনা ও ভালোবাসা রইলো দাদা।♥️♥️

একটি পাহাড়ি মেয়ের চিত্রাংকন আমাদের মধ্যে শেয়ার করেছেন দাদা দেখে আমি মুগ্ধ হয়ে গেলাম। দেখতে খুবই সুন্দর লাগছে। কালার কম্বিনেশন বেশ ভালো ছিল। দেখতে পুরো অরজিনাল ছবির মতই দেখা যাচ্ছে। প্রতিটি ধাপ খুব সুন্দর ভাবে আমাদের মাঝে উপস্থাপন করেছেন আপনি। অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে দাদা এত সুন্দর একটি আর্ট আমাদের মাঝে শেয়ার করার জন্য। শুভকামনা রইল আপনার জন্য।

পাহাড়ি মেয়ের চিত্র অংকনটি খুবই সুন্দর হয়েছে দাদা। আপনি খুবই দক্ষতার সাথে এই চিত্রটি অঙ্কন করলেন। আসলে চিত্র অংকন মনের ভিতর থেকে আসে।আর আপনার হঠাৎ করে পাহাড়ি মেয়ের চিত্র অংকন করার ইচ্ছা জাগল। সেখান থেকেই সৌন্দর্যময় চিত্র অঙ্কন করেছেন। সুন্দরভাবে উপস্থাপন করেছেন। পাহাড়ী মেয়ের চিত্র অংকনটি আমার কাছে অনেক ভালো লেগেছে। একদম অরজিনাল চিত্র ফুটিয়ে তুলেছেন। দেখে ভালো লাগলো। অসংখ্য ধন্যবাদ আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য।

দাদা আপনার আর্ট কিন্তু দারুন লাগে,আমার মনে হয়না আমি চেষ্টা করলেও এভাবে আর্ট করতে পারবো তাও আবার কলম আর মোম রংগের মাদ্ধমে ,অসাধারণ হয়েছে। অনেক ধন্যবাদ দাদা

দাদা,ঘটনা কি পাহাড়ী এলাকার কন্যা।তাও আবার বেশ সুন্দরী মেয়ে।😉😉।দাদা মেয়েটার কি মন খারাপ? যাই হোক মেয়েটার চোখ গুলো বেশ সুন্দর। খুব সুন্দর করে দেখিয়েছেন। প্রতিটি ধাপ খুব সুন্দর করে দেখিয়েছেন। ভালো লাগলো। ধন্যবাদ

দাদা আপনি তড়িঘড়ি করে যে আর্টটি করেছেন আমাকে পুরোদিন সময় বেধে দিলেও হয়তো এত্ত সুন্দর করে আর্ট করতে পারতাম না। কয়েকটি ধাপ পরে এসে মনে হচ্ছিলো আরে এখনি তো সুন্দর লাগছে। পরের ধাপে আরো একটু বাড়ছে তার সৌন্দর্য।
সত্যি বলতে দাদা পেন্সিল আর্টে পারদর্শীদের জন্য ছবি সুন্দর করতে যে রঙ না হলেও চলে। তা আপনি আর্টের মাঝ খানে প্রমাণ করে দিয়েছেন। রঙ করার পর তো আরো বেড়ে গেছে তার সৌন্দর্য অনেক খানি।
ধন্যবাদ প্রিয় দাদা।

রাতে শুয়ে শুয়ে দাদা পাহাড়ি মেয়ের চিন্তাভাবনা করছেন। লক্ষণ তো ভালো দেখছিনা। কোথাও এমন পাহাড়ি মেয়ে দেখেছেন কিনা? অঙ্কনের বিষয়টি তো এমনই যে মাথার মধ্যে যেটি ঘুরে খাতা কলমে সেটি প্রকাশ করার চেষ্টা করা হয়। আপনার আজকের পাহাড়ি মেয়ের চিত্রাঙ্গনটি খুবই সুন্দর হয়েছে। বিশেষ করে পাহাড়ি মেয়ের মাথার খোপাটি আমার কাছে খুব ভালো লেগেছে। তাছাড়া শাড়ির প্রতিটি ভাঁজ আপনি খুব নিখুঁতভাবে অঙ্কন করেছেন। আর আশেপাশের হালকা-পাতলা ডিজাইনের কারণে আর্টটি আরো চমৎকার ভাবে ফুটে উঠেছে। সবমিলিয়ে খুবই ভালো লেগেছে আমার কাছে আপনার পাহাড়ি মেয়ের আর্টটি।

ও দাদা এখন তো পাহাড়ে যেতে হবে। মেয়েটাকে তো খুঁজে বের করতে হবে 😍 প্রেমে পড়ে গেলাম যে 🤪। হিহিহিহি। চমৎকার এঁকেছেন পুরো ছবিটা। ঘরে বাধিয়ে রাখা যাবে একদম। 👌👌👌

দাদা এককথায় অসাধারণ একটি অংকন 😍
ভাগ্যিস হঠাৎ মাঝ রাতে পাহাড়ি কন্যার কথা মনে পরলো, না হলে চমৎকার অংকন পেতাম না।
একদমই নিখুঁত আর অনবদ্য একটি চিত্রাংকন ছিল। বিশেষ করে তার চেহারাটা ভীষণ মায়াবী হয়েছে।

মুগ্ধ হলাম আপনার অংকন দেখে।

দাদা দোয়া রইল পুরো পরিবারের জন্য 🥀

ভাইয়া আপনার এত প্রতিভা কোত্থেকে আসে তা জানতে চাওয়া আমার মন। আসলে সত্যি বলতে আমার মনে হচ্ছে এটি আসলেই একজন কন্যা বসে আছে এবং সে কন্যার ফটোগ্রাফি করা হয়েছে। জাস্ট অসাধারণ হয়েছে, কল্পনা থেকে এত সুন্দর আর্ট আমার পক্ষে সম্ভব না। আপনার থেকে শিখছি। পরবর্তী আর্ট এর অপেক্ষায় রইলাম।

কি যে দারুণ এক চিত্র দেখলাম আপনার কাছে।এত রাতে মনের কোণে আসা পাহাড়ি এক মেয়ের চিত্র অংকন করেছেন। আপনার করা অংকন গুলো দেখে আমারও খুব ইচ্ছে করে আমি যেন এভাবে করতে পারি। তবে শারীরিক অসুস্থতা কারণে অনেকদিন ধরে অঙ্কনের ধারে কাছেও যাওয়া হয় না। সত্যিই দাদা আপনার জন্য অনেক শুভেচ্ছা রইল। কারণ আপনার কাছ থেকে আমরা প্রতিনিয়ত এইরকম কিছু অংকন দেখতে চাই। এমনিতেই আপনি অসাধারণ অংকন করেন ।আর এত রাতে যে আপনি নিজের ভাবনা থেকে পাহাড়ি মেয়ের চিত্র অংকন করেছেন তা ভাবতেই আমার অবাক লাগতেছে।

আপনার চিত্রাংকন প্রতিভা রিতীমত ঈর্ষণীয়। প্রতিটা ডিটেইল চমৎকার ভাবে তুলে ধরেছেন।পাহাড়ী কন্যদের চুল বাধার স্টাইল থেকে তাদের অলংকার সব সুন্দর ভাবে তুলে ধরেছেন।ধন্যবাদ এত সুন্দর চিত্রকর্ম আমাদের মাঝে শেয়ার করার জন্য।

Hola @winkles.

Para ser un dibujo rápido ha quedado muy bien, me gusto mucho.

Saludos y bendiciones.

জাস্ট অসাধারণ হয়েছে দাদা দেখে চোখ জুড়িয়ে গেল। পাহাড়ি কন্যার চিত্রাংকন আপনি অনেক সুন্দর ভাবে উপস্থাপন করেছেন। এত সুন্দর চিত্র অংকন পরবর্তীতে অন্য কেউ দেখলে খুব সহজেই তৈরি করে নিতে পারবে। ধন্যবাদ আপনাকে দাদা আপনার জন্য শুভকামনা রইল।

সত্যিই আমি রীতিমতো মুগ্ধ আপনার এই অংকন দেখে দাদা পাহাড়ি কন্যার এই চিত্র অঙ্কন দেখে মনে হচ্ছে এটা যেন একটা ফটোগ্রাফি। বিশেষ করে আপনার এই অঙ্কিত পাহাড়ি কন্যার চুলের দৃশ্য এবং সেই সাথে কাপড় পড়ার দৃশ্যটি আমার কাছে অনেক বেশি ভালো লেগেছে। শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত আমাদের মাঝে চমৎকারভাবে শেয়ার করার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।