🥘 চিকেন তন্দুরি রেসিপি 🥘 || ১০% পে-আউট লাজুক খ্যাঁক-এর জন্য।

in hive-129948 •  2 months ago 

2022-06-21-00-21-04-372.jpg

🥘 চিকেন তন্দুরি 🥘


আসসালামু আলাইকুম, কেমন আছেন সবাই? আশা করি সবাই ভালো আছেন। আমিও আল্লাহর রহমতে ভালো আছি। প্রতিদিনের মত আজকেও আপনাদের সামনে এসে হাজির হলাম। আজকে আমি আপনাদের সামনে অনেক সুন্দর একটা রেসিপি নিয়ে এসেছি। আজ আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করব চিকেন তন্দুরি রেসিপি। রেসিপিটা খেতে অনেক মজার।

চিকেন তন্দুরি আমার ভীষণ পছন্দের। আমার ইচ্ছে করলেই বেশিরভাগ সময় রেস্টুরেন্টে গিয়ে খাওয়া হয়। কিন্তু আবার কয়েকবার আমি বাড়িতেই তৈরি করেছিলাম। তাই আবারও ইচ্ছে করছিল খেতে। এইজন্য ভাবলাম বাড়িতেই তৈরি করে নিব। এই জন্য বাড়িতে থাকা কিছু সাধারন উপকরণ দিয়েই আজকের রেসিপি টা তৈরি করলাম। বাড়িতে তৈরি করলেও আমি অনেক চেষ্টা করি সুন্দরভাবে তৈরি করার জন্য। বানানোর পরে দেখলাম ভালই হয়েছে খেতে। আমাদের পরিবারের সবাই খুবই পছন্দ করেছে। এজন্য আমারও ভীষণ ভালো লেগেছে। তাই ভাবলাম রেসিপিটা আপনাদের সাথে শেয়ার করি।

কারণ আমার মনে হয় কম বেশি সবাই চিকেন খেতে পছন্দ করে। বাড়িতে যে কোন রেসিপি তৈরি করলে তো তা বেশি স্বাস্থ্যসম্মত হয়। তো চলুন, এই রেসিপিটি তৈরি করতে আমার কি কি উপকরণ লাগলো এবং আমি পুরো রেসিপি কিভাবে তৈরি করলাম তার বর্ণনা নিচে প্রতিটা ধাপে উপস্থাপন করলাম। আশা করি আমার আজকের রেসিপি আপনাদের ভালো লাগবে।

1655742754669.jpg

🥘 চিকেন তন্দুরি 🥘


🍲 উপকরণ 🍲

উপকরণপরিমাণ
মুরগির মাংস৮ পিচ
পেঁয়াজ বাটা১ কাপ
রোসন বাটা২ টেবিল চামচ
হলুদের গুঁড়া২ টেবিল চামচ
মরিচের গুঁড়া২ টেবিল চামচ
মসলা গুড়া১ টেবিল চামচ
লবনপরিমাণমতো
তেলপরিমাণমতো

1655738383519.jpg

🍲 প্রস্তুত প্রণালী 🍲

✴️ ধাপ 0️⃣1️⃣ ✴️ :

প্রথমে আমি মুরগির মাংস গুলো কি একটু বড় বড় করে পিস করে ভালোভাবে পরিষ্কার করে নিলাম।

IMG_20220619_192143.jpg


✴️ ধাপ 0️⃣2️⃣ ✴️ :

এরপর আমি মুরগির টুকরোগুলো উপরের অংশ কিছুটা চিকন চিকন করে কেটে নিয়েছি। কারণ তা না হলে ভেতরে মসলাগুলো ঢুকবে না।

1655738492638.jpg


✴️ ধাপ 0️⃣3️⃣ ✴️ :

এরপর আমি একটি বাটিতে পেঁয়াজ বাটা, রসুন বাটা, তার সাথে সবগুলো মসলা দিয়ে একসাথে মিশিয়ে নিলাম। মসলা গুলোকে একসাথে ভালোভাবে মেখে মিশিয়ে নিলাম।

1655738559593.jpg


✴️ ধাপ 0️⃣4️⃣ ✴️ :

এরপর মুরগির মাংসের উপরে মসলাগুলো দিয়ে ভালোভাবে সবগুলো টুকরোর ভিতরে ভিতরে ঢুকিয়ে মেখে নিলাম। সবগুলো মসলা একত্রে মেখে তারপর 30 মিনিটের জন্যও ঢেকে রেখে দিলাম। এতে করে মসলাগুলো মাসের ভেতরে ঢুকে যাবে।

1655738609997.jpg


✴️ ধাপ 0️⃣5️⃣ ✴️ :

30 মিনিট পাওয়ার চুলায় একটি ফ্রাইপ্যান বসিয়ে দিলাম। এরপর এতে পরিমান মতো তেল দিয়ে দিলাম।

1655738704436.jpg


✴️ ধাপ 0️⃣6️⃣ ✴️ :

এরপর মসলাগুলো সহ একটা একটা করে মুরগির মাংসের টুকরোগুলো তেলের মধ্যে দিয়ে দিলাম। এরপর ঢাকনা দিয়ে ঢেকে একদম অল্প আঁচে রান্না করবো।

1655738757497.jpg


✴️ ধাপ 0️⃣7️⃣ ✴️ :

এভাবে কিছুক্ষণ রান্না করলাম। দেখলাম এগুলো থেকে একটু পানি বেরিয়ে এসেছে।

IMG_20220619_201140.jpg


✴️ ধাপ 0️⃣8️⃣ ✴️ :

এরপর নিচের অংশ একটু হয়ে আসলে আস্তে আস্তে সবগুলো মাংসের টুকরো উল্টিয়ে দিলাম। আমি একটু পোড়া পোড়া করে ভাজা করব।

IMG_20220619_203358.jpg


✴️ ধাপ 0️⃣9️⃣ ✴️ :

এর জন্য এপিঠ-ওপিঠ ভালোভাবে ভেঁজে নিলাম। দেখা যাবে এই নিচের মশা গুলো একটু পড়ে গেছে। তখন আমি চুলা থেকে নামিয়ে নিলাম। আমি মশাগুলো ছাড়াই শুধুমাত্র মাংসের টুকরোগুলো উঠিয়ে নিলাম।

IMG_20220619_204637.jpg


✴️ শেষ ধাপ ✴️ :

এরপর পরিবেশন করলাম। আশা করি আমার আজকের রেসিপি আপনাদের ভালো লাগবে। পরবর্তীতে আবারও দেখা হবে নতুন কিছু নিয়ে। সবাই ভালো থাকবেন।

1655742765510.jpg

1655742754669.jpg

1655742725373.jpg

1655742737013.jpg


পোস্ট বিবরণ

শ্রেণীরেসিপি
ডিভাইসRedmi note 9
ফটোগ্রাফার@tasonya
লোকেশনফেনী

আমার পরিচয়

1635518106012.jpg

আমার নাম তাসলিমা আক্তার সনিয়া। আমি বাংলাদেশী। বাংলা ভাষা আমাদের মাতৃভাষা বলে আমি অনেক গর্বিত। আমি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের অনার্স ফাইনাল ইয়ারের একজন ছাত্রী। আমি ছবি আঁকতে ভালোবাসি। বিশেষ করে যে কোন ধরনের পেইন্টিং করতে পছন্দ করি। যখনই অবসর সময় পায় আমি ছবি আঁকতে বসে পড়ি। এছাড়াও আমি ভ্রমণ করতে পছন্দ করি। কিছুদিন পর পর বিভিন্ন জায়গায় ভ্রমণ করার চেষ্টা করি। এছাড়াও আমি বিভিন্ন ধরনের কারুকাজ করতে পছন্দ করি। রান্না করতেও আমার খুব ভালো লাগে। আমি বিভিন্ন ধরনের রেসিপি তৈরি করতে পছন্দ করি। আমি যখনই সময় পাই আমার পরিবারের সবাইকে বিভিন্ন ধরনের রেসিপি তৈরি করে খাওয়াই। আমি সব সময় নতুন নতুন কিছু করার চেষ্টা করি।

ধন্যবাদ সবাইকে

banner-abb23.png

cyxkEVqiiLy2ofdgrJNxeZC3WCHPBwR7MjUDzY4kBNr81Nob8RjiAuXKzVPMCYze3VPJuZt6zKYtv5NHRTGki5Bb9J8zQgkNJMsUwkntqf5nqvpbiaDQNgkiw5c4UajTzbY.png

Authors get paid when people like you upvote their post.
If you enjoyed what you read here, create your account today and start earning FREE STEEM!
Sort Order:  

চিকেন তান্দুরি দেখে খেতে খুব ইচ্ছে করতেছে। আপনি খুব চমৎকারভাবে অত্যান্ত দক্ষতা সহকারে চিকেন তান্দুরি তৈরি করেছেন এবং ধাপে ধাপে আমাদের মাঝে উপস্থাপন করেছেন। সত্যি আপনার রন্ধন প্রক্রিয়া বেশ অসাধারণ । এইতো সুন্দর রেসিপি পোস্ট শেয়ার করার জন্য আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ জানাই।

আমি যেকোনো কাজ ভালোভাবে করার চেষ্টা করি। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।

চিকেন তন্দুরি রেসিপি দারুন লোভনীয় হয়েছে আপু। চিকেন তন্দুরি রেস্টুরেন্টে খেয়েছি অনেক। তবে বাসায় কখনো তৈরি করে খাওয়া হয়নি। নান রুটির সাথে চিকেন তন্দুরি খেতে আমার অনেক ভালো লাগে। আপনি অনেক সুন্দর ভাবে এই রেসিপি তৈরির সম্পূর্ণ পদ্ধতি উপস্থাপন করেছেন এজন্য আপনাকে জানাচ্ছি ধন্যবাদ। আপু আপনার জন্য শুভকামনা রইল।

অবশ্যই বাসায় তৈরি করে দেখবেন। খেতে খুবই ভালো হবে। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।

আপু আপনার চিকেন তন্দুরি রেসিপি দেখে আমার জিভে জল চলে এসেছে। একা একা খেয়ে নিলেন আমাদেরকে একটু ডাকলে্ন না। খুবই লোভ লাগিয়ে দিলেন চিকেন তন্দুরি রেসিপি দেখিয়ে। দেখে মনে হচ্ছে খুবই সুস্বাদু হয়েছে আপনার চিকেন তন্দুরি রেসিপি। খুব সুন্দর ভাবে ধাপে-ধাপে উপস্থাপনা করেছেন। এত সুন্দর একটি রেসিপি আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ। আপনার জন্য শুভকামনা রইল।

আপনার মন্তব্য পড়ে অনেক ভালো লাগলো। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।

চিকেন তন্দুরি রেসিপি দেখে খুব লোভ হচ্ছে দুপুরে এখনো খাওয়া হয়নি তবে রেসিপি দেখে খাবারের খুধা আরো বেড়ে গেল ্্ সুন্দর ভাবে প্রস্তুত প্রণালি তুলে ধরেছেন শুভকামনা রইল।।

দুপুরের সময় সত্যিই খাবার দেখলে খেতে ইচ্ছে করে। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।

খুবই মজাদার একটি চিকেন তন্দুরি রেসিপি আপনি আমাদের মাঝে শেয়ার করেছেন চিকেন তন্দুরি পছন্দ করেনা এরকম মানুষ খুব কমই আছে। রেসিপিটি দেখেই জিভে জল এসে গেল শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ।

চিকেন তন্দুরি পছন্দ করে না সত্যি এরকম মানুষ খুব কম আছে। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।

আপনার চিকেন তান্দুরি রেসিপি দেখে তো জিভে জল চলে আসলো। খুব খেতে ইচ্ছে করতেছে। চিকেন তান্দুরি খেতে আমার খুবই ভালো লাগে। আমার খুব প্রিয় একটি রেসিপি।প্রতিটি ধাপ খুব সুন্দর ভাবে উপস্থাপন করেছেন। আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ সুস্বাদু একটা রেসিপি আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য।

আপনার কাছে চিকেন তান্দুরি খেতে ভীষণ ভালো লাগে জেনে খুবই খুশি হলাম। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।

চিকেন তন্দুরি রেসিপি দেখেই তো খেতে ইচ্ছে করছে দেখে মনে হচ্ছে খেতে খুবই সুস্বাদু হয়েছে। ধাপগুলো আপনি খুবই সুন্দর ভাবে উপস্থাপনা করেছেন। আপনার জন্য শুভকামনা রইল।

আপনার খেতে ইচ্ছে করছে তাহলে ঝটপট তৈরি করে ফেলেন। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।

চিকেন তন্দুরি রেসিপি দেখেই খেতে ইচ্ছা করছে, আপনি খুবই মজাদার রেসিপি তৈরি করেছেন, আমার খু্বি প্রিয় রেসিপি সত্যিই আপনার উপস্থাপন ও পরিবেশন আমার অনেক ভালো লেগেছে, শুভকামনা রইল।

খেতে ইচ্ছে করলে তৈরি করে ফেলেন। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।

আপু আপনার চিকেন তন্দুরি রেসিপি দেখে জাস্ট অবাক হলাম। আপনি এতো সুন্দর ভাবে পরিবেশন করেছেন যে সবার ভালো লাগতে বাধ্য। আপনার জন্য রইলো অনেক অনেক শুভকামনা।

আমি একটু সুন্দর ভাবে পরিবেশন করার চেষ্টা করি। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।

অপ এ আমারে কি দেখাইলেন। চিকেন তান্দুরি আমার যে কতটা পছন্দের তা আমি বলে বুঝাতে পারব না।বিশেষ করে নান রুটি দিয়ে চিকেন তান্দুরি খেতে আমি সবচেয়ে বেশি ভালোবাসি। এত সুন্দর ভাবে মজাদার চিকেন তান্দুরি তৈরি করে আমাদের মাঝে উপস্থাপন করার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি আপু।

নান রুটি দিয়ে খেতে সত্যি খুবই ভালো লাগে। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।

আপু আপনি যে এত সুন্দর করে সুস্বাদু চিকেন তন্দুরি তৈরি করতে পারেন সেটা তো জানা ছিল না। তবে উচিত ছিল চিকেন তন্দুরি টা তৈরি করার আগে একবার দাওয়াত দেওয়ার, হাহাহা। সত্যি আপু লোভ সামলানো খুব দায়। কিন্তু আপনি পার্ফেক্ট ভাবে চিকেন তন্দুরি টা তৈরি করেছেন। এবং উপকরণ গুলো ঠিকঠাক ভাবে দিয়েছেন। আমাদের সাথে এত সুন্দর চিকেন তন্দুরি রেসিপি শেয়ার করার জন্য শুভেচ্ছা রইল।

দাওয়াত দিলেও তো আসতেন না। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।

এরকম রেসিপি আসলে দেখেই তো খেতে ইচ্ছে করে। চিকেন তন্দুরি রেসিপি নামটি যেমন খেতেও সুস্বাদু। আপনি খুবই সহজ ভাবে চিকেন তন্দুরি রেসিপি তৈরি করেছেন আর আমাদের মাঝে উপস্থাপনা করেছেন অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।

ঠিক বলেছেন নামে কি যায় আসে খেতে কিন্তু দারুণ। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।

চিকেন তন্দুরি রেসিপি যেটা দারুন খাবার ।যেটা দেখলেই খেতে ইচ্ছে করে। খুবই সুন্দর করে সুন্দর কিছু রেসিপি তৈরি করে আমাদের মাঝে তুলে ধরলেন। আমার কাছে খুবই ভালো লেগেছে আপু। দেখে খাওয়ার ইচ্ছে জেগেছিল কিন্তু কিছু করার নেই।

খাওয়ার ইচ্ছে জেগেছে কখনো তৈরি করে নিয়েন। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।

আজকে পোস্টটা দেখার পরে নিজেকে সামলানো অনেক কঠিন হয়ে যাচ্ছে আপু। এত লোভনীয় রেসিপি কেউ কখনো শেয়ার করে! শুরুতে মাংসের পিচ গুলো যেমন চিকন করে কেটে নিয়েছেন , তাতে বোঝা যাচ্ছে ভেতরে মসলাগুলো কতটা পারফেক্টলি ঢুকেছে। আর হালকা পোড়া পোড়া যেগুলো হয়েছে দেখতে আমার তো মনে হয় ওগুলো খেতে আরো বেশি মজা হয়েছে। চমৎকার একটা উপস্থাপনা দেখিয়েছেন আপু।

ঠিক বলেছেন মশলাগুলো একদম পারফেক্ট হয়েছিল তার সাথে পোড়া পোড়া গুলো আমার কাছে খুব ভালো লাগে খেতে। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।

দেখেই তো খেতে ইচ্ছে করছে। কি আর কমেন্ট করবো। আমাদের শুধু দেখেই যেতে হয় । আর না খেয়ে কমেন্ট এ বলতে হয়- খেতে অনেক ভাল লাগবে। হাহা। এই রেসিপি সম্পর্কে নতুন করে কিছু বলার নেই। সবারই ভাল লাগবে এই চিকেন তন্দুরি। খেতে পারছি না দেখে আপনাকে ধন্যবাদ দিতে পারলাম না। সরি।

আসলেই আপনার কথাটা শুনে সত্যিই ভালো লাগলো। আমার বাংলা ব্লগে অনেক সুন্দর সুন্দর রেসিপি দেখতে পাই আর তা খাও আর কোনরকম চান্স নাই। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।

নামের দ্বিতীয় শব্দ টা অবশ্য আমি পূর্বের শুনেছি, তবে কখনও জানিনা ওটা কোন রেসিপি কে বলা হয়। আজকে আপনার মাধ্যমে তা জানতে পারলাম। রান্নার ধরন ও ধাপগুলো দেখে কিছুটা সহজভাবে বুঝতে পারলাম।

আপনি নামটি শুনেছেন রেসিপিটি ট্রাই করে দেখলে মনে হয় ভাল লাগবে। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।

আপনি আমার মন জয় করে ফেলেছেন কারণ এই খাবারটি আমার খুবই পছন্দের, মাঝেমাঝেই বন্ধুদের সাথে চিকেন তান্দুরি চিকেন চাপ ইত্যাদি খাবারগুলো আমি খেয়ে থাকি, আপনার জন্য অনেক অনেক শুভকামনা খুব সুন্দর ভাবে উপস্থাপন করেছেন আজকের এই রেসিপিটি।

আমিও চিকেন তান্দুরি এবং চিকেন চাপ এই খাবারগুলো অনেক পছন্দ করি। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।

😯😋😋 চিকেন তন্দুরি রেসিপি!! আপু আপনি তো দেখছি আমার অনেক অনেক পছন্দের খাবার চিকেন তন্দুরি রেসিপি শেয়ার করেছেন। দেখেই তো জিভে জল চলে এসেছে এবং লোভ সামলানো কষ্টকর হয়ে যাচ্ছে। অনেক লোভনীয় ভাবে উপস্থাপন করেছেন এবং পরিবেশন করেছেন। অনেক অনেক ধাকা আপনাকে এত লোভনীয় একটি রেসিপি আমাদেরকে উপহার দেওয়ার জন্য। অনেক ভালোবাসা রইলো আপনার জন্য।

আপনার কাছে ভালো লেগেছে জেনে খুবই ভালো লাগলো। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।

বাড়িতে যে কোন রেসিপি তৈরি করলে তো তা বেশি স্বাস্থ্যসম্মত হয়।

এই কথাটি আপনি একদম ঠিক বলেছেন আপুর বাড়িতে যে কোন রেসিপি তৈরি করলে তার স্বাস্থ্য সম্মত হয়।

আজকে আপনি আমাদের মাঝে খুবই চমৎকার ভাবে বাড়িতেই চিকেন তন্দুরি তৈরি করার পদ্ধতি শেয়ার করলেন। চিকেন তন্দুরি খেতে আমার অনেক ভালো লাগে কিন্তু আজ পর্যন্ত কোনদিন বাড়িতে চিকেন তন্দুরি তৈরি করে খাওয়া হয়নি। আপনার তৈরি করা এই পোস্টের মাধ্যমে আমিও শিখে গেলাম কিভাবে বাড়িতে চিকেন তন্দুরি তৈরি করতে হয়।

তাহলে অবশ্যই ট্রাই করে দেখবেন। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।

চিকেন তান্দুরির ছবিটি দেখে একদম জিভে পানি চলে আসলো। আসলে মেসে থাকি তো তাই এসব ভাল-মন্দ খাবার দেখলে লোভ সামলাতে পারিনা। আপনার এত সুন্দর রেসিপিটি এত গুছিয়ে উপস্থাপন করার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ আপু। আপনার জন্য শুভকামনা।

অনেক ভালো লাগলো আপনার মন্তব্য পড়ে, অনেক ধন্যবাদ আপনাকে।