কিছু রেনডম ফটোগ্রাফি নিয়ে একটি অ্যালবাম || প্রিয় লাজুক খ্যাঁকের জন্য ১০%

in hive-129948 •  2 months ago 

আজ - সোমবার

৪ আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ


আসসালামু আলাইকুম



আমার বাংলা ব্লগ কমিউনিটিতে আপনাকে স্বাগতম



হ্যালো বন্ধুরা,

আপনারা সবাই কেমন আছেন? আশা করি, সৃষ্টিকর্তার অশেষ রহমতে অনেক অনেক ভালো রয়েছেন। আমিও আপনাদের দোয়ায় অনেক ভালো রয়েছি। 'আমার বাংলা ব্লগ'এর সকল ভাইবোন বন্ধুদের কে আমার পক্ষ থেকে সালাম এবং অভিনন্দন জানিয়ে শুরু করতে যাচ্ছি আজকের নতুন একটি পোস্ট। আমি আজকের পোস্টটি আপনাদের মাঝে ভালো লাগার কিছু অনুভূতিকে কেন্দ্র করে উপস্থাপন করতে চলেছি।

আজ আমি আপনাদের মাঝে কিছু রেনডম ফটোগ্রাফি নিয়ে উপস্থিত হয়েছি। এই রেনডম ফটোগ্রাফির মধ্যে আপনারা অনেক ভালো লাগা ফটো দেখতে পারবেন। পাশাপাশি মনোমুগ্ধকর বর্ণনা খুজে পাবেন। তাই আশা করি খুব মনোযোগ সহকারে আপনার আমার এই পোস্ট পড়বেন এবং নতুন কিছু ধারনা অর্জন করবেন। তাই চলুন আর দেরি না করে এখনই মেইন পয়েন্টে চলে যাওয়া যাক।


'আমার বাংলা ব্লগ'
কোয়ালিটি সম্পন্ন পোস্ট


📸🦊📸



নিজে তোলা
কিছু রেনডম ফটোগ্রাফি
স্থান
গাংনী, মেহেরপুর


ফটোগ্রাফি সমূহ:


১ নং ফটোগ্রাফি

বর্ষা আসলেই কদম ফুল গাছে অনেক কদম ফুল দেখতে পাওয়া যায়। সাথে দেখতে পাওয়া যায় ছোট ছোট ছেলে মেয়েরা কদম ফুল পড়ার জন্য গাছের দিকে লক্ষ্য করে অনেক কিছু ছুড়ে মারছে ফুল পড়ার জন্য। কদম ফুল ফুটন্ত অবস্থায় যদি বৃষ্টি এসে সব ধুয়ে যায় তাহলে আরো সুন্দর দেখায় কদম ফুলের দৃশ্য। মনোমুগ্ধকর কদম ফুল গাছে কদম ফুল লক্ষ্য করা যায়। কিছুদিন আগে একটি কদম গাছের নিচে উপস্থিত হয়েছিলাম বিশেষ এক কারণে হঠাৎ মনে হল কিছু ফটোগ্রাফি করে রাখার প্রয়োজন তাই ফটোগ্রাফি করেছিলাম। অবশ্য কদম ফুল গুলো অনেক উপরে ছিল যার জন্য বেশি ফটোগ্রাফি করতে পারি নাই। তবে এই ফুলটিতে দেখলাম একটি প্রজাপতি বসে রয়েছে তাই এই ফুলটাকে ফটোগ্রাফি করার খুব ইচ্ছে হয়েছিল। তবে ঝিরিঝিরি হাওয়া বই ছিল তাই ভালোভাবে ফটোগ্রাফি করতে পারি নাই যেহেতু ফুল গুলো দুলছিল।

IMG_20220821_112735_048.jpg

IMG_20220821_112740_337.jpg
Photography device: Infinix hot 11s
location


received_305654148004402.webp
zr7XQBzuvvkjgjjPxunUtP5k84gxgWc4mR8PqdBj5rx8AtXSSugGPwSy7JKyM3rgX4k3arRVPC2wT66DqiAYg2UuYrHpE94NCJsYEnjKP7Erbg.png


২ নং ফটোগ্রাফি

বৃষ্টি আসার পূর্বে স্কুলের দোতলা থেকে লক্ষ্য করছিলাম পূর্বের ফাঁকা জায়গাটি শুকনা এবং সেখানে অনেক গরু ছাগল চরায় করছিল। ভেবেছিলাম ওখানে যেয়ে গরু ছাগলের কিছু ফটোগ্রাফি করবো কিন্তু ক্লাস নেওয়ার ফলে সময় হয়ে উঠেনি। হঠাৎ করে বৃষ্টি এসে শুকনো স্থানগুলো পানিতে পরিপূর্ণ করে তুলল। তবে ওই দিকে তেমন লক্ষ্য আমার ছিল না হঠাৎ ব্যাঙের ডাক শুনে পূর্ব সাইডে তাকিয়ে লক্ষ্য করলাম কিছুক্ষণ আগে দেখলাম শুকনো জায়গা আর এখন সেই জায়গাতে পানি পরিপূর্ণ হয়ে গেছে। সৃষ্টিকর্তার কত না সুন্দরী কার্যক্র, যখন যা ইচ্ছে তাই করে দেখাতে পারে এক নিমিষে। তবে আমি আফসোস না করে ভেবে দেখলাম ওখানে যাওয়ার সুযোগ তো হয়নি দূর থেকেই গরু-ছাগল গুলো ভালো ফটোগ্রাফি হয়তো হতো না তবে এখন ওই স্থানের কয়েকটা ফটো উঠায় স্মৃতি হয়ে থাক স্টিমের পাতায়।

IMG_20220914_133526_188.jpg

IMG_20220914_133513_547.jpg
Photography device: Infinix hot 11s
location


received_305654148004402.webp
zr7XQBzuvvkjgjjPxunUtP5k84gxgWc4mR8PqdBj5rx8AtXSSugGPwSy7JKyM3rgX4k3arRVPC2wT66DqiAYg2UuYrHpE94NCJsYEnjKP7Erbg.png


৩ নং ফটোগ্রাফি

বৃষ্টি থেমে যাওয়ার কিছুক্ষণ পরের আকাশের দৃশ্য। আমি অবশ্য আমার সাদা সাদা মেঘের দৃশ্যগুলো ক্যামেরাবন্দি করতে বেশ ভালোবাসি। যেহেতু এখন শরৎকাল তাই অন্যান্য ঋতুর চেয়ে এই সময়তে আকাশের রং অতিমাত্রায় চেঞ্জ হতে থাকে আর মনমুগ্ধ করা মেঘ দেখতে পাওয়া যায় আকাশের চারপাশে। স্কুল ছুটি হওয়ার পূর্ব কিছু মুহূর্তে ভেবেছিলাম ক্রিকেট বল নিয়ে একটু খেলব। অফিস থেকে বল হাতে বের হয়ে এসে স্কুল মাঠের পূর্ব দিকে লক্ষ্য করতে খেয়াল করলাম পূর্ব দিগন্তে খুব সুন্দর মেঘ জমেছে তাই বলটি রেখে মোবাইলটা বের করেই চেষ্টা করলাম সুন্দর ফটোগ্রাফি করার। মেঘগুলো আমাকে মুগ্ধ করেছিল খুবই চমৎকার দৃশ্য আকাশের বুকে জমে আছে। তাই আর দেরি না করেই সাধ্য অনুসারে চেষ্টা করলাম ভালো ভিউ নেওয়ার জন্য।

IMG_20220915_135215_526.jpg

IMG_20220915_135159_132.jpg

IMG_20220915_135144_349.jpg
Photography device: Infinix hot 11s
location


received_305654148004402.webp
zr7XQBzuvvkjgjjPxunUtP5k84gxgWc4mR8PqdBj5rx8AtXSSugGPwSy7JKyM3rgX4k3arRVPC2wT66DqiAYg2UuYrHpE94NCJsYEnjKP7Erbg.png


৪ নং ফটোগ্রাফি

এটা আমাদের গ্রামের মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বর্তমান গেটের দৃশ্য, গেটের পাশে সুন্দর একটি মসজিদ নির্মাণ করা হয়েছে। অবশ্য মসজিদের স্থানে ছোটবেলায় বসে অনেক খেলা করেছি বন্ধু বান্ধবের সাথে। যেহেতু পাশেই রয়েছে প্রাথমিক বিদ্যালয়, তাই আমার জীবনে প্রাথমিক শিক্ষা এবং মাধ্যমিক শিক্ষা এখানেই গ্রহণ করেছি। কিছুদিন আগে রাত দশটার পর স্কুলে যাওয়ার বিশেষ প্রয়োজন হয়েছিল তাই সেখান থেকে ফিরতে পথে ফটোগ্রাফিগুলো করেছিলাম।

IMG_20220909_210613_936.jpg

IMG_20220909_210600_210.jpg

IMG_20220909_210555_836.jpg
Photography device: Infinix hot 11s
Location


received_305654148004402.webp
zr7XQBzuvvkjgjjPxunUtP5k84gxgWc4mR8PqdBj5rx8AtXSSugGPwSy7JKyM3rgX4k3arRVPC2wT66DqiAYg2UuYrHpE94NCJsYEnjKP7Erbg.png


৫ নং ফটোগ্রাফি

ফুলের চারা কেনার উদ্দেশ্যে গাংনী- ধানখোলার নার্সারিতে গিয়েছিলাম। সেখানেই নিকটে দেখছিলাম অনেকগুলো ইট একসাথে পালা দিয়ে উঁচু করে রাখা হয়েছে। তাই মনের মধ্যে কর্তুহল জাগছিল এতই ইট পালা দেওয়া এই জায়গায়! ইচ্ছে হলো একটু ঘুরে ফিরে দেখে আসি আর ফটোগ্রাফি করে আসি। সেখানে যেয়ে লক্ষ্য করলাম একদম ইটের পালার নিচেই অনেক বিছুটি গাছ রয়েছে,তাই মনে পড়ে গেল ছোটবেলার কিছু স্মৃতি। এই গাছ নিয়ে ক্লাসে কয়েকজন দুষ্টু বন্ধুরা দুষ্টামি করতো। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশের গোরস্থানের বিছুটি গাছ থেকে পাতা সংরক্ষণ করে নিয়ে এসে বই এর মধ্যে অথবা খাতার মধ্যে রেখে দিত, কারো সাথে মারামারি হলে তাদের গায়ে লাগিয়ে দিত। তাই তখনই মনে হল বিছুটি গাছ অনেকদিন পরে দেখতেছি,এর ফটোগ্রাফি করায় রাখা উচিত এবং বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করলে হয়তো আরো ভালো লাগবে। তাই মনোযোগ সহকারে একটু দূর থেকে ফটোগ্রাফি করেছিলাম। অবশ্য ঐদিন প্রচন্ড রোদ থাকায় ফটোগ্রাফি গুলো সুন্দর হয়েছিল।

IMG_20220822_152847_138.jpg

IMG_20220822_152837_909.jpg
Photography device: Infinix hot 11s
Location


received_305654148004402.webp
zr7XQBzuvvkjgjjPxunUtP5k84gxgWc4mR8PqdBj5rx8AtXSSugGPwSy7JKyM3rgX4k3arRVPC2wT66DqiAYg2UuYrHpE94NCJsYEnjKP7Erbg.png

R6TbvATub8MquGoqJZ4SE2UCpaUQzmNnWQxvJGwvYApXWE4KsVzC8vNNXWgtz7hrfoYPSrjupZgj7VtKhrH935ua1PLs4Vr7KiYnVAy3oD...tCNiac63XNuwJJZPbTjHfGPYJH4BJoHgX8HdohSPrSasKvArV8wiiFV7ntYqz66tLZiqG67BKrPAveZFRs3vaqucpJgsaE3qA6Rwasb2fYDx3U5dXGLwwRdyH8.png


আশা করি,আমার এই পোস্টটি পড়ে আপনি অনেক বিষয় সম্পর্কে জানতে বুঝতে ও শিখতে পেরেছেন, সেই সাথে নতুন জ্ঞান অর্জন করতে পেরেছেন। পোস্টটি উপস্থাপনা কেমন ছিল এবং এ বিষয়ে আপনার অনুভূতি কেমন, অবশ্যই কমেন্ট বক্সে আমাকে জানাতে ভুলবেন না। আপনার জন্য আমার পক্ষ থেকে শুভকামনা রইলো।

💌আমার পরিচয়💌


আমি মোঃ নাজিদুল ইসলাম (সুমন)। বাংলা মাস্টার্স ফার্স্ট ক্লাস মেহেরপুর গভমেন্ট কলেজ। আমার বাসা গাংনী-মেহেরপুর। মড়কা বাজার, গাংনী,মেহেরপুর এ গ্রীনরেইন ল্যাবরেটরি স্কুল নামক প্রি-ক্যাডেট স্কুলের সহকারি শিক্ষক । ইলেকট্রনিক্সের যন্ত্রপাতি মেরামত ও সৌর প্যানেল নিয়ে রিসার্চ করতে পছন্দ করি। প্রাকৃতিক দৃশ্য ফটোগ্রাফি করা আমার সবচেয়ে বড় ভালোলাগা। দীর্ঘদিনের আমি পাঙ্গাস মাছ চাষী এবং বিরহের কবিতা লেখতে খুবই ভালোবাসি।




পোস্টটি পড়ার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।

received_434859771523295.gif

@sumon09

💖💞💞💖


image.png

image.png

আমার পরিচিতিকিছু বিশেষ তথ্য
আমার নাম@sumon09🇧🇩🇧🇩
ফটোগ্রাফি ডিভাইসমোবাইল
ব্লগিং মোবাইলInfinix hot 11s
ক্যামেরাcamera-50mp
আমার বাসামেহেরপুর
আমার বয়স২৫ বছর
আমার ইচ্ছেলাইফটাইম স্টিমিট এর 'আমার বাংলা ব্লগ' এ ব্লগিং করা

zr7XQBzuvvkjgjjPxunUtP5k84gxgWc4mR8PqdBj5rx8AtXSSugGPwSy7JKyM3rgX4k3arRVPC2wT66DqiAYg2UuYrHpE94NCJsYEnjKP7Erbg.png


পুনরায় কথা হবে পরবর্তী কোন পোস্ট, ততক্ষণ ভালো থাকা হয় যেনো। আল্লাহ হাফেজ।

TZjG7hXReeVoAvXt2X6pMxYAb3q65xMju8wryWxKrsghkLbdtHEKTgRBCYd7pi9pJd6nDf4ZPaJpEx3WAqvFVny2ozAtrhFXaDMnAMUAqtLhNESRQveVFZ7XHcED6WEQD48QkCkVTAvNg6.png

Authors get paid when people like you upvote their post.
If you enjoyed what you read here, create your account today and start earning FREE STEEM!
Sort Order:  

Imagen2.png
CONGRATULATIONS

This post has been upvoted with @steemcurator09/ Curated by: @yousafharoonkhan

কদম ফুলের ফটোগ্রাফি গুলো দেখে মুগ্ধ হয়ে গেলাম। অনেক দিন হয়ে গেলো কদম ফুল দেখিনা। আপনার পোস্ট ভিজিট করে ভালো লাগলো। এভাবেই এগিয়ে যান আপনার জন্য শুভ কামনা রইলো ভালো থাকুন।

চেষ্টা করেছিলাম অনেকগুলো ফটোগ্রাফি করবো কিন্তু ফুল অনেক উপরে থাকায় পারি নাই।

চমৎকার কিছু ফটোগ্রাফি আপনি আমাদের সাথে তুলে ধরেছেন এবং যথাযথ বর্ণনার মাধ্যমে এটি উপস্থাপন করেছেন। অনেক অনেক ধন্যবাদ আপনাকে ভালো থাকবেন।

আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ ভাই এত সুন্দর মন্তব্য করেছেন তাই।

অসাধারণ কিছু ফটোগ্রাফি আমাদের মাঝে তুলে ধরেছেন স্পেশালি কদম ফুল।। বর্ষা শুরুতেই কদম ফোটা শুরু হয়ে যায় তবে এবার আর আপনার ফটোগ্রাফি বাদে কদমফুল দেখা হয়নি।। বর্ষা চলে গেছে তারপরে শরতের এসে দেখলাম কদম ফুল।। ছোটবেলায় মনে আছে আমার একবার কদম ফুল পারতে গিয়ে গাছ থেকে পড়ে গিয়ে আমার এক বন্ধুর হাত ভেঙেছিল কারণ কদম গাছের ডাল গুলো অনেক নরম হয়ে থাকে।। সুন্দর ফটোগ্রাফির সাথে সুন্দর উপস্থাপনা করেছেন শুভকামনা রইল আপনার জন্য

হ্যাঁ ভাই ফটোগ্রাফি কোন কিছুদিন আগে করে রেখেছিলাম। চেষ্টা করব আবারও ভিন্ন কিছু আপনাদের মাঝে তুলে ধরার।

এই কদম ফুল নিয়ে ছোটবেলার অনেক স্মৃতি রয়েছে ।আপনার ফটোগ্রাফি দেখে মনে পড়ে গেল বাড়ির আশেপাশে এখন খুব কম সংখ্যকদম ফুলের সৌন্দর্য দেখতে পাওয়া যায়। আগে বাড়ির আশেপাশে যেখান সেখানেই দেখা যেত। আমার কাছে আপনার আকাশের সৌন্দর্যের ফটোগ্রাফি অনেক ভালো লাগলো।

আমাদের বাড়িতেও কদম ফুল গাছ ছিল এখন আর নেই।

কদম ফুল আমার কাছে অনেক বেশি ভালো লাগে আপনার পোষ্টের মাধ্যমে কদম ফুল দেখতে পেলে খুবই ভালো লাগলো ভাইয়া সেই সাথে আপনার প্রতিটি ফটোগ্রাফি খুবই চমৎকার ছিল। খুবই সুন্দরভাবে আপনি বর্ণনা করেছেন আমাদের মাঝে ধন্যবাদ আপনাকে।

ভালো লাগবে জেনেই এত সুন্দর পোস্ট করেছিলাম ভাই, তবে আরো উৎসাহ পেলাম।

ছোটবেলায় কদম ফুল দিয়ে অনেক খেলা করতাম। এক কদম ফুল দিয়ে এক সময় ঘর নোংরা করে ফেলতাম তার জন্য আমার কাছে অনেক বকা শুনতে হতো। সুন্দর হয়েছে আপনার ফটোগ্রাফি গুলো। কিন্তু কদম ফুলের উপর প্রজাপতিটাকে খুব একটা বোঝা যাচ্ছে না। আমার কাছে সবচেয়ে বেশি ভালো লেগেছে আকাশের ফটোগ্রাফি গুলো।

কদম ফুল নিয়ে ছোটবেলার অনেক স্মৃতি আমাদের রয়েছে।

আপনি খুব অসাধারণ কিছু রেনডম ফটোগ্রাফি করেছেন। সত্যি বলেছেন কদম ফুল দেখলে ছোটবেলায় আমরাও এগুলো নেওয়ার জন্য বহুত চেষ্টা করি। খুব সুন্দর করে যথার্থ বর্ণনা দিয়ে ফটোগ্রাফি গুলো আমাদের মাঝে শেয়ার করেছেন। ধন্যবাদ আপনাকে আমাদের মাঝে উপস্থাপনা করার জন্য।

ছোটবেলায় কদম ফুল নিয়ে আমরা বন্ধু-বান্ধবী মিলে অনেক খেলা করতাম।

আপনার পোষ্টের মাধ্যমে অনেকদিন পর কদম ফুলটি দেখতে পেলাম। কদম ফুলটির পাশাপাশি আপনার তোলা ফটোগ্রাফি গুলো অনেক সুন্দর হয়েছে।
আপনার জন্য শুভকামনা রইল

আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ,খুবই ভালো লাগলো এত সুন্দর মন্তব্য পড়ে।

ভাইয়া আপনার প্রতিটা ফটোগ্রাফি অনেক সুন্দর হয়েছে। আমার কাছে সবচেয়ে বেশি কদম ফুলের ফটোগ্রাফ ভালো লেগেছে। অনেক দিন হয়েছে কদম ফুল দেখা হয়না। এত সুন্দর কিছু রেনডম ফটোগ্রাফি আমাদের মাঝে শেয়ার করার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

আশা করি আরো সুন্দর সুন্দর রেনডম ফটোগ্রাফি আপনাদের মাঝে শেয়ার করব।