🤤বিলম্ব ফলের সুস্বাদু ঝাল ভর্তা রেসিপি🤤।😚প্রিয়@shy-fox 10% beneficiary।😚

in hive-129948 •  2 months ago 
🙋‍♀️আসসালামু আলাইকুম 🙋‍♀️আপনারা সবাই কেমন আছেন? আশা করি আল্লাহ রহমতে ভালো আছেন। আমিও কিন্তু আলহামদুলিল্লাহ ভালো আছি।

Picsart_22-04-19_20-16-30-531.jpg

আমি @santa14 আজকে আপনাদের মাঝে হাজির হয়ে গেছি ইউনিক একটি রেসিপি নিয়ে।যেই রেসিপি তে রয়েছে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন সি আর বিভিন্ন পুষ্টি গুণে ভরপুর। বিলম্ব ফল দিয়ে মজাদার ঝাল ভর্তা রেসিপি।

রেসিপি টা তৈরি করার আগে আপনাদের সাথে একটা কথা বলতে চাই। আপনাদের কারও যদি বিলম্ব ফল প্রয়োজন হয়। আমাদের বাসা থেকে নিয়ে যাবেন। আমাদের বাড়িতে দুইটি বিলম্ব ফল গাছ রয়েছে। এরপর আমাদের এখানে মোটামুটি সবার বাড়িতে বিলম্ব ফল গাছ রয়েছে। এখন বিলম্ব ফলের সিজন তাই গাছে হাজার হাজার বিলম্ব ফল ধরেছে।আর কেউ তেমন খাই না প্রতিদিন গাছের নিচে অনেক পাকা পাকা বিলম্ব ফল পড়ে থাকে।পাকা বিলম্ব ফল থেকে আবার নতুন চারাও উঠে।

IMG_20220419_200957.jpg

বিলম্ব ফল দিয়ে টক আর মাছ ভুনা খেতে অসম্ভব মজাদার হয়।এই রোজার মধ্যে বিলম্ব ফল দিয়ে রেসিপি তৈরি করে খেতে আলাদা একটা স্বাদ পাওয়া যায়। কারণ সারাদিন না খেয়ে মুখ একদম তেতো হয়ে থাকে। যখন বিলম্ব ফলের রেসিপি দিয়ে ভাত খাওয়া হয়। তখন মনে হয় একটু বেশি করে খেতে পারছি।আমার খুব পছন্দের ফল বিলম্ব।আমার আব্বুও অনেক বেশি পছন্দ করতো আপনাদের ও পছন্দ কি না জানাবেন? তো চলুন তাহলে বেশি কথা না বলে শুরু করি আজকের মজাদার রেসিপি।

বিলম্ব ফলের সুস্বাদু ঝাল ভর্তা রেসিপি।

IMG_20220419_200500.jpg

উপকরণ সমূহপরিমাণ।
১.বিলম্ব ফল১৪টি ।
২.কাঁচা মরিচপরিমাণ মতো।
৩.রসুনের কোয়া৭ টি।
৪.পেঁয়াজএকটি।
৫.ধনিয়াপাতাপরিমাণ মতো।
৬.লবণস্বাদমতো।
৭.হাম্বল দিস্তাএকটি।

IMG_20220419_200720.jpg

প্রথম ধাপ

IMG_20220419_200742.jpg

IMG_20220419_200657.jpg

প্রথমে আমি বিলম্ব ফল গাছে উঠে সুন্দর সুন্দর দেখে কিছু বিলম্ব ফল পেরেছি। আসলে আমাদের গাছটা ছোট তাই আমি একটু উঠতে পারি🤭।এরপর বিলম্ব ফল গুলো নিয়ে পরিষ্কার করে ধুয়ে রেখে দিলাম।

দ্বিতীয় ধাপ

IMG_20220419_200635.jpg

IMG_20220419_200557.jpg

এরপর এখন আমি পেঁয়াজ ও রসুন গুলো খোসা ছাড়িয়ে নিয়ে নিবো। এবার কাঁচা মরিচ, পেঁয়াজ, রসুনের কোয়া ও ধনিয়াপাতা পরিষ্কার করে ধুয়ে নিবো। পেঁয়াজ ও ধনিয়াপাতা পাতা কুচি কুচি করে কেটে নিবো।

তৃতীয় ধাপ

IMG_20220419_200537.jpg

IMG_20220419_200500.jpg

এবার চুলায় একটি প্যান বসিয়ে দিবো। এরপর প্যান গরম হলে এতে ধুয়ে রাখা বিলম্ব ফল গুলো দিয়ে তিন মিনিট ভেজে একটি থালায় নামিয়ে রাখি।

চতুর্থ ধাপ

IMG_20220419_200803.jpg

IMG_20220419_200819.jpg

এখন আবার একই প্যানে রসুন ও কাঁচা মরিচ গুলো দিয়ে দিবো। এরপর আস্তে আস্তে রসুন ও কাঁচা মরিচ গুলো এক সাথে ভেজে নিবো।

পঞ্চম ধাপ

IMG_20220419_200836.jpg

IMG_20220419_200907.jpg

এইবার পেঁয়াজ কুচি ও ধনিয়াপাতা কুচি গুলো এক সাথে এক মিনিট ভেজে নিয়ে নিবো।

ষষ্ঠ ধাপ

IMG_20220419_200926.jpg

এখন পেঁয়াজ, রসুন,ধনিয়াপাতা, কাঁচা মরিচ ভাজা ও লবণ এক সাথে করে নিয়ে নিবো।

সপ্তম ধাপ

IMG_20220419_200433.jpg

IMG_20220419_200419.jpg

এবার একটি হাম্বল দিস্তা নিয়ে নিবো। এরপর ভেজে রাখা কাঁচা মরিচ গুলো থেঁত করে নিবো।

অষ্টম ধাপ

IMG_20220419_200349.jpg

IMG_20220419_200332.jpg

হাম্বল দিস্তা দিয়ে কাঁচা মরিচ থেঁত হলে এখন আমি ভেজে রাখা রসুন ও লবণ দিয়ে আবারও থেঁত করে নিবো।

নবম ধাপ

IMG_20220419_200257.jpg

IMG_20220419_200239.jpg

এখন ভেজে রাখা বিলম্ব ফল গুলো দিয়ে থেঁত করে একটি থালায় নামিয়ে রাখি।

দশম ধাপ

IMG_20220419_200159.jpg

IMG_20220419_200130.jpg

IMG_20220419_200105.jpg

এখন পেঁয়াজ ও ধনিয়াপাতা কুচি ভাজা দিয়ে হাত দিয়ে একটু মাখিয়ে নিয়ে নিলাম। রোজা ছিলাম যেহেতু তাই লবণ টেস্ট করতে পারছি না। তবে যতটুকু দিয়েছি একদম ঠিক ছিল।

IMG_20220419_200049.jpg

IMG_20220419_200032.jpg

IMG_20220419_200015.jpg

এখন বিলম্ব ফলের ঝাল সুস্বাদু ভর্তা রেডি। পরিবেশনের জন্য কিছু বিলম্ব ফলের টুকরো ও পাতা দিয়ে সুন্দর করে ভর্তা টা পরিবেশন করে নিয়েছি।আসলেই এই ভর্তা টা খেতে অসম্ভব মজাদার। আর গরম ভাতের সাথে খেতেও দারুণ একদম।

আশা করছি আমার আজকের রেসিপিটি আপনাদের কাছে ভাল লেগেছ। কেমন লেগেছে দয়া করে কমেন্ট করে জানাবে। আপনাদের একটি কমেন্ট আমাকে অনেক বেশি উৎসাহিত করে।

আজকে আমি এখানেই বিদায় নিচ্ছি।ভাল থাকবেন সুস্থ থাকবেন সবাই। আল্লাহ হাফেজ সবাই কে। কোন ভুল ত্রুটি হলে দয়া করে ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন🙏।

❤️ধন্যবাদ সবাইকে❤️

Authors get paid when people like you upvote their post.
If you enjoyed what you read here, create your account today and start earning FREE STEEM!
Sort Order:  

এই ফলটির নাম বহু শুনেছি কিন্তু কাছ থেকে সত্যি সত্যি দেখার সৌভাগ্য এখনো হয়নি। আপনার পোস্টের কল্যাণে অন্তত ছবি দেখতে পেলাম। রেসিপিটি আমার কাছে বেশ ভালো লাগলো। যদিও আমাদের এদিকে এ ফলটি পাওয়া যায়না। ধন্যবাদ ভালো থাকবেন

জি এমনও কিছু কিছু ফল আছে আমারও কাছ থেকে দেখার ভাগ্য এখনো হয়নি।ভাইয়া আপনার দাওয়াত রইল আমাদের জেলায় বেড়াতে আসবেন। এই ফলের গাছসহ ফল আপনাকে দিয়ে দিবো। অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া। আপনার জন্য অনেক শুভকামনা রইল ভাইয়া।

Upvoted! Thank you for supporting witness @jswit.
Please check my new project, STEEM.NFT. Thank you!
default.jpg

বিলম্ব ফলের সুস্বাদু ঝাল ভর্তা রেসিপি শেয়ার করেছেন দারুন হয়েছে। এভাবে কখনো খাইনি তবে আপনার রেসিপি দেখে ভালো লাগলো। অনেক সুন্দর করে সাজিয়ে উপস্থাপনা করেছেন। আপনার জন্য শুভ কামনা রইলো।

ভাইয়া একবার খেলে বার বার খেতে ইচ্ছে করবে হি হি। এতো দারুণ লাগে গরম ভাত দিয়ে খেতে। অসংখ্য ধন্যবাদ ভাইয়া। আপনার জন্য শুভকামনা রইল ভাইয়া।

বিলম্ব ফল দিয়ে ভর্তা তৈরির ধাপ গুলো সত্যিই আপনি অসাধারণ ভাবে উপস্থাপন করেছেন। আপনার প্রতিটি ধাপে ধাপে তৈরি করে এই রেসিপিটি দেখে অনেক লোভ হচ্ছে আমার। দেখেই বুঝা যাচ্ছে এই রেসিপিটি অনেক সুস্বাদু হয়েছে। ধন্যবাদ আপনাকে এত সুন্দর একটি রেসিপি শেয়ার করার জন্য।

জি ভাইয়া খেতে অনেক সুস্বাদু হয়েছে। বেশি সুস্বাদু হয় গরম ভাতের সাথে খেতে। অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া। আপনার জন্য অনেক শুভকামনা রইল ভাইয়া।

আপনার রেসিপিটি আমার অনেক ভালো লেগেছে ।এই রেসিপিটি এর আগে কখনো খাওয়া হয়নি তবে আপনার রেসিপির কালারটি দেখে মনে হচ্ছে অনেক সুস্বাদু এবং মজাদার ছিল।

অনেক অনেক ধন্যবাদ আপু মনি। আপনার জন্য অনেক শুভকামনা রইল।

এইটা আবার কি ধরনের ফল আপু এর আগে তো কখনো দেখিনি নামও শুনিনি ☺️। তবে ঠিক এইরকম একটা ফল আছে আমাদের বাড়িতে ওটা আবার ঔষধি নাম হল হরতকি। কিন্তু সেটা তো ভীষণ তেতো😁। তবে রেসিপিটি দেখে বেশ সুস্বাদু এই মনে হল। একটু পাঠায় দেন খেয়ে দেখি হাহা😍

ভাইয়া হরতকি আর বিলম্ব অনেক পার্থক্য হরতকি অনেক তেতো আর বিলম্ব অনেক টক আর রসালো।তবে আমাদের গ্রামের ভাষায় এটাকে বেলম্বু বলে।এই রেসিপি খেতে টক ঝাল ।অসংখ্য ধন্যবাদ ভাইয়া, আপনার জন্য অনেক শুভকামনা রইল।

আপনার বিলম্ব ফলের ঝাল ভর্তা দেখে খুব ভালো লাগলো। আমাদের বাসার মাঝে মধ্যে এ ধরনের ভর্তা তৈরি করা হয়। ভর্তা খেতে খুব ভালো লাগে টক ঝাল হয়ে থাকে। এত অসাধারণ রেসিপি শেয়ার করার জন্য আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ জানাই।

একদম ঠিক বলেছেন ভাইয়া ভর্তা টা টক আর ঝাল খেতে সত্যি অসম্ভব মজাদার হয় । তবে যারা টক খেতে পছন্দ করে তাদের জন্য বেশি প্রিয়।ধন্যবাদ ভাইয়া,আপনার জন্য অনেক শুভকামনা রইল ভাইয়া।

এটিকে আমরা বিলম্বি বলে চিনি। বিলম্বি নামটি মনে হয় হবে তবে স্থানভেদে নামের পরিবর্তন হতে পারে। বিলম্বি ফল কামরাঙ্গার সমগোত্রীয় ফল। তবে মানুষ খুব একটা খায় না। আপনার রান্নার প্রসেস ঠিকঠাক ছিল ধন্যবাদ।

ভাইয়া আমার জানা মতে এই ফলের নাম বিলম্বি বলে সবাই চিনে। এর আর কোন নাম আছে কি না আমার মনে হচ্ছে না।বিলম্বি কামরাঙ্গার ফলের সমগোত্রীয় ফল হলেও হতে পারে । কামরাঙ্গার তো মিষ্টি আর একটু টক হয়। আর বিলম্বি প্রচুর পরিমানে টক হয়। ধন্যবাদ ভাইয়া, আপনার জন্য অনেক শুভকামনা রইল।

নতুন একটি ইউনিক রেসিপি আপনার থেকে উপহার পেয়েছি। এত সুন্দর রেসিপি আমি কখনো দেখিনি। তবে এ প্রথম আপনার থেকে সুন্দর একটি নতুন রেসিপি দেখে ভালো লাগলো।

দুআ করবেন ভাইয়া যেনও এভাবেই নতুন নতুন ব্লগ আপনাদের উপহার দিতে পারি। ধন্যবাদ ভাইয়া, আপনার জন্য অনেক শুভকামনা রইল ভাইয়া।

অনেক গুলো ফল দিয়ে আপনি দারুন একটি ঝাল ভরতার রেসিপি করেছেন দেখতে অনেক সুন্দর এবং লোভনীয় লাগছে খুব গুছিয়ে প্রতিটা ধাপ উপস্থাপনা করেছেন শুভ কামনা রইলো।

কমেন্ট করার জন্য অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া।

বিলম্ব ফল বলে যে কিছু আছে এটাই আজকে জানা হলো। তবে আপনি যখন ভর্তা করলেন। দেখে মনে হচ্ছিলো খুব মজা হয়েছে। ইফতারে এই ভর্তা রাখলে খুব ভালো লাগবে।

জি ভাইয়া ইফতারে এই ভর্তাটা খেতে ভালোই লাগবে টক ঝাল।তবে গরম ভাতের সাথে খেতে বেশি ভালো লাগে। অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া, আপনার জন্য অনেক শুভকামনা রইল ভাইয়া।

এতো চারা আর ফল দিয়ে কী করবেন পার্সেল করে বাংলা ব্লগ পরিবারের সকলের জন্য পাঠিয়ে দেন আপু। আর আমি বিলম্ব ফল কখনো এভাবে বর্তা করে খাইনি। বিলম্ব ফল দিয়ে যে মাছ ভুনা করা যায় তা জানা ছিলনা আমার।

যাইহোক ব্লগটি পড়ে ভালো লাগলো আপু।

একদম ঠিক বলেছেন আপু এত চারা আর ফল দিয়ে করবো । আপনি অ্যাড্রেস দেন আমি সব আপনার জন্য পার্সেল করে পাঠিয়ে দিবো। অনেক ধন্যবাদ আপু মনি, আপনার জন্য অনেক শুভকামনা রইল।

এই ফল টা আজ আমি নতুন নাম শুনলাম।আপনি বিলম্ব ফলের সুস্বাদু ঝাল ভর্তা রেসিপি অনেক সুন্দর ভাবে তৈরি করেছেন আপু। প্রয়োজনীয় উপকরণগুলি সঠিক মাত্রা তুলে ধরেছেন। প্রতিটি ধাপ খুব সুন্দর উপস্থাপনা করেছেন। আপনার জন্য শুভকামনা রইল প্রিয় আপু।

গঠন মূলক মন্তব্য করে পাশে থাকার জন্য অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া। আপনার জন্য অনেক দুআ ও শুভকামনা রইল ভাইয়া।

এই ফলটির নাম আজ এই প্রথম শুনলাম। যাইহোক আপু ফল দিতে হবে না আমাকে দু চারটা গাছ দিয়ে দিয়েন হাহাহা।

আর আপনার রেসিপির কথা কি বলব দেখতে তো ভারি লোভনীয় লাগছে, খেতে খুবই সুস্বাদু হয়েছে এতে কোনো সন্দেহই নেই। যাই হোক এরপর এই ভর্তা রেসিপিটি তৈরি করলে আমাকে কিন্তু অবশ্যই দাওয়াত দেবেন হিহিহি।
ধন্যবাদ শুভকামনা রইল আপনার জন্য।

হি হি হি ভাইয়া দু চারটা না সব নিয়ে যান। ভাইয়া আপনার দাওয়াত রইল এসে খেয়ে যাবেন সাথে করে অনেক গুলো বিলম্ব ফল আর চারা নিয়ে যাবেন। অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া। আপনার জন্য অনেক শুভকামনা রইল ভাইয়া।

বিলম্ব ফলের সুস্বাদু ঝাল ভর্তা রেসিপি করেছেন দেখে মনে হচ্ছে খুবই সুস্বাদু হয়েছে। খুবই লোভনীয় দেখাচ্ছে আপনার রেসিপিটি। আমার তো খুবই খেতে ইচ্ছে করছে। ধাপে ধাপে অনেক সুন্দর ভাবে আমাদের মাঝে উপস্থাপন করেছেন। অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে এত সুন্দর একটি রেসিপি শেয়ার করার জন্য। আপনার জন্য অনেক অনেক শুভকামনা রইল।

আপু আমাদের বাসায় চলে আসেন। তৈরি করে খাওয়াবো। খেতে অনেক টেস্টি। অনেক ধন্যবাদ আপু।

বিলম্ব ফলের সুস্বাদু ঝাল ভর্তা 😋😋
আহ্ কি দেখালেন আপু 😋
অসম্ভব স্বাদের খাবার এটি। চমৎকার রেসিপি দেখিয়েছেন আপু। দোয়া রইল 🥀

সুন্দর মন্তব্য করে উৎসাহিত করার জন্য অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া। আপনার জন্য অনেক শুভকামনা রইল ভাইয়া।

বিলম্ব ফলের নামের সাথে আমি একদমই পরিচিত নই। আমার মনে হয় জীবনে এই প্রথম এই ফলটা দেখতে পেলাম। তবে এই ফলটা দিয়ে আপনি খুবই সুন্দর ভাবে ঝাল ভর্তা রেসিপি তৈরি করেছেন।। দেখতে খুবই লোভনীয় লাগছে ।।আশা করি খেতেও অনেক সুস্বাদু হয়েছিল ।।
শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ।।

ভাইয়া এই ফল টা আমাদের বি বাড়িয়া তে পাওয়া যায়। অন্য কোথাও তেমন পাওয়া যায় না। তাই আপনি হয়তো নতুন দেখছেন। ফলটার ভর্তা খেতে টক আর ঝাল। অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া, আপনার জন্য শুভকামনা রইল ভাইয়া।

বিলম্ব ভর্তা তৈরি করা যায় আমার এর আগে জানা ছিল না। দেখতেছি একদিন এনে ভর্তা করে খেতে হবে। আপনার উপস্থাপনাটা আমার বেশ ভাল লেগেছে। শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত আপনি খুব সুন্দর ভাবে বর্ণনাও করেছেন। খুবই ইউনিক একটি রেসিপি ছিল আজ। এভাবে সামনের দিকে এগিয়ে যান আপনার জন্য শুভকামনা রইল।

ভাইয়া বিলম্ব ফল দিয়ে অনেক মজার মজার রেসিপি তৈরি করে খাওয়া যায়। তবে ভর্তাটা বেশি ভালো লাগে। অবশ্যই ভাইয়া একদিন বাসায় তৈরি করে খেয়ে দেখবেন। ধন্যবাদ ভাইয়া আপনার জন্য অনেক শুভকামনা রইল ভাইয়া।

বিলম্ব ফলের সুস্বাদু ডাল ভর্তা রেসিপি আপনি আমাদের মাঝে শেয়ার করেছেন। আপনারাই ভর্তা রেসিপি আমার কাছে একদম নতুন এবং ইউনিক লেগেছে। শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত খুবই চমৎকার ভাবে আমাদের মাঝে শেয়ার করেছেন যেটা দেখে খুবই ভালো লাগলো। এত মজাদার একটি ভর্তা রেসিপি শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ।

আমার তৈরি করা ভর্তা রেসিপি টা আপনার কাছে ভালো লেগেছে । দেখে খুশি হলাম। মন্তব্য করে পাশে থাকার জন্য অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া।

এই ফল আমার কখনো খাওয়া হয়নি । তবে রেসিপির উপস্থাপনা দেখে বিলম্ব ফলের ঝাল ভর্তা খাওয়ার ইচ্ছা জাগলো । আপনার উপস্থাপনাও বেশ ভালোই ছিল ।

দাওয়াত রইল ভাইয়া একসময় ভাবিকে নিয়ে আসবেন আমাদের বাসায়। তখন এইভাবে তৈরি করে খাওয়াবো। এই ফলের ভর্তাটা খেতে অসম্ভব মজাদার। গরম ভাত দিয়ে খেতে আরও বেশি টেস্টি হয়।ধন্যবাদ ভাইয়া,আপনার জন্য অনেক দুআ ও ভালোবাসা রইল ভাইয়া।

এই ফলের নাম আমি কখনো শুনিনি। আপনার ভর্তা দেখে মনে হচ্ছে খুবই সুস্বাদু হয়েছিল। আমার কাছে আপনার এই রেসিপি খুব ইউনিক লেগেছে। ধন্যবাদ আপনাকে এত মজাদার রেসিপি শেয়ার করার জন্য। আপনার জন্য শুভকামনা রইল।

জি আপু এই ফলটা অনেক টক। আর অনেক বেশি ঝাল দিয়ে ভর্তাটা তৈরি করে ছিলাম। তাই খেতে অনেক মজাদার হয়ে ছিল।ধন্যবাদ আপু আপনার জন্য অনেক শুভকামনা রইল।

বিলম্ব ফলের ভর্তা কখনো খাওয়া হয়নি, বিলম্ব ফল ভেজে তারপর মরিচ, ধনিয়া পাতা, রসুন, পেঁয়াজ সবকিছু মিলিয়ে আপনি খুবই সুস্বাদু করে বিলম্ব ফলের ঝাল ভর্তা রেসিপি তৈরি করেছেন। রেসিপিটি দেখে খুব লোভনীয় মনে হচ্ছে। অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে ইউনিক একটি রেসিপি আমাদের মাঝে শেয়ার করার জন্য। শুভকামনা রইল আপনার জন্য।

ভাইয়া একবার একদিন খেয়ে দেখবেন। অনেক মজাদার হয়। যদি কোথাও না পাওয়া যায় আমাকে বলবেন আমি আপনার জন্য পাঠিয়ে দিবো হি হি।ধন্যবাদ ভাইয়া।

এই ফলটির নাম আজকে প্রথম শুনলাম। বিলম্ব ফলের ভর্তা আপনি খুব সুন্দর ভাবে আমাদের মাঝখানে উপস্থাপন করেছেন। আমিও যদি কোনদিন এই ফল পাই চেষ্টা করব এই ফলের ভর্তা করে খাওয়ার জন্য

ভাইয়া অনেকেই এই ফলটা একদম চিনে না।এটা মনে আমাদের জেলাতে বেশি পাওয়া যায়।তবে এটা সবজি বাজারে পাওয়া যেতে পারে। ধন্যবাদ ভাইয়া আপনার জন্য শুভকামনা রইল ভাইয়া।

বিলম্ব ফল এর নামটাই আমি প্রথম শুনলাম। এর আগে কখনো দেখি নি।আপনার বাসা গিয়ে ফল নিয়ে আসতে হবে। হা হা হা।

আপনার বিলম্ব ফল এর ভর্তা তো দেখেই খেয়ে ফেলতে ইচ্ছে করছে। খুবই লোভনীয় হয়েছে। বিলম্ব ভর্তা তৈরী করার পুরো প্রক্রিয়া আমার কাছে খুবই ভালো লেগেছে। খুব সুন্দর ভাবে ধাপে ধাপে গুছিয়ে আমাদের মাঝে উপস্থাপন করার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। শুভ কামনা রইলো আপনার জন্য।

অবশ্যই আপু চলে আসেন এসে নিয়ে যান। এত বেশি এই ফল নিলে শেষ হবে না। আপু একবার বাসায় তৈরি করে খেয়ে দেখবেন। আপনার জন্য শুভকামনা রইল আপু।

আপনি বিলম্ব ফলের সুস্বাদু ঝাল ভর্তা রেসিপিটা অসাধারণ ভাবে তৈরি করেছেন। দেখে আমার লোভ লেগে গেল। আপনি চমৎকার ভাবে এটা উপস্থাপন করেছেন। আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ এই ধরনের রেসিপি আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য।

মন্তব্য করে পাশে থাকার জন্য অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া। আপনার জন্য অনেক শুভকামনা রইল ভাইয়া।

বিলম্ব ফলের সুস্বাদু ঝাল ভর্তা রেসিপি দেখে আমি কোন ভাবে লোভ সামলাতে পারছিলাম না। অনেক দিন থেকে আমার বিলম্ব ফল খাবার ইচ্ছা কিন্তু কোনোভাবেই সেই সুযোগটি পাচ্ছিলাম না। আপনার তৈরি করা এই বার্তাটি আমার কাছে একটি ইউনিক ভর্তা বলে মনে হয়েছে। আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ আপু এমন সুন্দর একটি বিলম্ব ফলের ভর্তা তৈরি করার পদ্ধতি আমাদের মাঝে শেয়ার করার জন্য।

ভাইয়া একবার বাসায় তৈরি করে খেয়ে দেখবেন। অনেক মজাদার হয় মাছ দিয়ে খেতে বেশি টেস্টি হয়।ধন্যবাদ ভাইয়া।

লবম মরিচ দিয়ে কাচা খেয়েছিলাম। তবে এভাবে খাওয়া হয়নি। এমনকি এই রেসিপি দেখলাম ও আজ জীবনের প্রথম। ইউনিক রেসিপি বটে। আপু দাওয়াত দিবেন না। খাইতে মন চাচ্ছে খুব।

ভাইয়া এই ফলটা খেতে অসম্ভব টক।এই ফলের ভর্তা, আচার আর রেসিপি তৈরি করে খেয়ে বেশি ভালো লাগে। একবার খেয়ে দেখবেন ভাইয়া। আর ভাইয়া ছোট বোনের বাসায় দাওয়াত লাগে না। চলে আসবেন ইনশাআল্লাহ একদিন। ধন্যবাদ ভাইয়া, আপনার জন্য অনেক শুভকামনা রইল ভাইয়া।