পাশে আছি বন্ধু তোমার (১০%🦊🦊🦊🦊)

in hive-129948 •  last month 
কেমন আছেন সবাই? আশা করি ভাল আছেন। আমার বাংলা ব্লগ পরিবারের সকল সদস্যদের সুস্বাস্থ্য কামনা করছি। সবাই হয়তো একটু চিন্তায় আছেন। চিন্তাটা থাকাটা স্বাভাবিক যেভাবে ক্রিপ্টো মার্কেট ডাউন হয়ে গেছে। আর এই চিন্তা করাটা অমূলক নয় কারণ আমাদের মাঝে অনেকেই আছে যাদের এখান থেকে আর্নিং করে সংসার চলে। তবে কোন কিছুতেই ধৈর্য্য হারানো উচিত নয় বলে আমি মনে করি। প্রতিটা জিনিসের উত্থান-পতন আছে এই উত্থান-পতনের পরে যদি ভালো কিছু হয় তাহলে সেই পতনই ভালো। ক্রিপ্টো মার্কেট এই পতনের ফলে হয়তো যে ঘাটতিগুলো রয়ে গিয়েছিল আমাদের চোখের আড়ালে সেগুলো সবার সামনে উঠে আসবে এবং আমাদের চিন্তাশক্তির পরিবর্তন আসবে। আমাদের মাঝে হয়তো অনেকেই না বুঝে না এনালাইসিস করে মার্কেটে ইনভেস্ট করে থাকে তাদের ক্ষেত্রে একটি শিক্ষা হতে পারে ভবিষ্যতে বড় ক্ষতি থেকে বাঁচার জন্য। এখন থেকে হুটহাট করে না বুঝে কেউ হয়তো মার্কেটে ইনভেস্ট করবে না। এটি একটি ভাল দিক তবে যে ক্ষতি হয়েছে তার জন্য অবশ্যই খুব খারাপ লাগছে। আমি কখনো স্টিম এবং ট্রোন এর বাহিরে জানতাম না। এই ক্রাইসিস এর ফলে আমি এখন অনেক কিছু সম্পর্কে জেনেছি কয়েকদিন ধরে অনেক নিউজ দেখলাম সেখান থেকে ক্রিপ্টো সম্পর্কে আমার কিছু নলেজ হয়েছে । আমি যেটা দেখলাম লুনার মালিক খুবই দ্রুত মার্কেটে নতুন একটি কয়েন আনবে। এবং সেই কয়েনের সাথে লুনাকে একিভুত করবে । অর্থাৎ মার্কেটে বর্তমানে কয়েক ট্রিলিয়ন লুনা কয়েন আছে তা থেকে বার্ন করে ১ বিলিয়ন নামিয়ে আনবে । অর্থাৎ আপনার যদি এক মিলিয়ন লুনা থাকে তাহলে ট্রিলিয়ন থেকে বিলিয়ন করতে যে পার্সেন্টেজ হবে আমার কাছে সেই পরিমান নতুন কয়েন যোগ হবে। যাইহোক আমার আলোচ্য বিষয়এগুলো নয়।

20220515_150633_0000.png

হতাশা আমাদের সম্ভাবনা কে নষ্ট করে

এক জীবনে চলার পথে বিভিন্ন ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। আমরা যখন কোন কিছুর ওপর প্রচণ্ড ভরসা করি সেই বিষয়টি যখন নড়বড়ে হয়ে যায় তখন এক ধরনের হতাশা কাজ করে। খুব ভাল ছাত্র অনেক ভালো পড়াশোনা করছে সে বিশ্বাস করে দেশে ভাল রেজাল্ট করতে পারবে। সে ভালো কোন চাকরি করতে পারবে কিন্তু এত পড়াশোনার করার পরও যখন সে প্রত্যাশিত কোন কিছু করতে পারে না তখন তার ভেতরে এক হতাশা চেপে বসে। হতাশা থেকেই শুরু হয়ে যায় জীবনের এক অতিষ্ঠ সময়। তাদের অবশ্যই হতাশাকে পাশ কাটিয়ে এগিয়ে চলতে হবে। জীবনে চলার পথে এই ধরনের হতাশা গুলোকে কখনোই মনে স্থান দেওয়া যাবে না। হয়তো কিছু খারাপ থাকতে হবে। এটা ভাবতে হবে যে এর পেছনে কোনো ভালো কিছু রয়েছে। এখন পারিনি সামনে অবশ্যই পারবো এই বিশ্বাস রেখেই এগিয়ে চলতে হবে। কারণ যে বিষয়গুলো আমাদের হাতে থাকে না সে বিষয়গুলো নিয়ে আমাদের হতাশ হওয়া ঠিক নয়। তখনই হতাশ হওয়া উচিত যখন বিষয়গুলো আমাদের হাতের নিয়ন্ত্রণে থাকবে তার পরেও হতাশ হওয়া উচিত নয়। হতাশা দুশ্চিন্তা আমাদের ভেতরে সম্ভাবনাকে নষ্ট করে, আমাদের সৃষ্টিশীলতাকে ভেঙ্গে ফেলে। ভিতরে থাকা উদ্যমকে থমকে দেয়। তখন আর কিছু করতে মন চায় না। এইধরনের চিন্তা আসার কারণ হচ্ছে আমরা যখন কোন কিছু করি তা যদি ফলাফল ঠিকমতো না পাই তাহলে সে কাজের প্রতি আমাদের আগ্রহ হারিয়ে ফেলি। তবে সবকিছুরই খারাপ সময় আছে খারাপ সময়ে যা আপনাকে এক সময় ভালো রাখত তার পাশেই থাকা উচিত।আর সেই বিষয়গুলো পাশে থাকলে অবশ্যই ভবিষ্যতে ভালো কিছু করার সম্ভাবনা থাকে। আমরা একটা উদাহরণ দিয়ে ধারণা পরিষ্কার করতে পারি । ধরুন আমাদের একজন খুব ভালো বন্ধু বলতে পারেন বেস্ট ফ্রেন্ড। তার সাথে সব সময় আমাদের চলাফেরা। আমাদের সুখ-দুঃখ সবকিছু শেয়ার করা। তাই একে অপরের প্রতি নির্ভরশীল হয়ে গেছি আমরা কিন্তু হঠাৎ করে আমাদের বন্ধু যদি কোন বড় ধরনের দুর্ঘটনা হয়, বা সে কোন বড় ধরনের বিপদে পড়ে তখন কি আমাদের উচিত তার পাশ থেকে চলে আসা? যদি সত্যিকারে ভালবেসে থাকি তাকে অবশ্যই যত খারাপ সময় আসুক না কেন তার পাশেই থাকা উচিত। তাহলে বন্ধুর প্রতি তার সম্মান শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা বেড়ে যাবে। ভালবাসা প্রতিদানে অবশ্যই আপনার জীবনের সুদিন চলে আসবে কারণ প্রকৃতি কখনো কারো সাথে বেইমানি করে না। আপনি যদি কাউকে কষ্ট দেন কারো সাথে স্বার্থপর আচরণ করেন প্রকৃত কোন না কোন ভাবে আপনার সাথে বেইমানি করবে।

sunset-1807524__480.webp.jpg

Image Source

তাই আমি বলবো বর্তমান আমাদের প্রিয় পরিবার স্টিমিট জগতে কিছু খারাপ সময় এসেছে। তাই বলে আমরা কখনোই তাঁকে ছেড়ে আসতে পারি না। স্টিমিট আমাদের ভালবাসার জায়গা আমাদের সুখ-দুঃখ আলোচনা করার জায়গা। একে অপরের সাথে বন্ধুর মতো প্রিয়জনের মতো থেকে একসাথে কিন্তু সেই বন্ধুর সামান্য বিপদে আমরা যদি সরে যাই তাহলে সত্যিকারে বন্ধুত্বের পরিচয় মেলে না। আমাদের আরও নতুন উদ্যোমে শক্তিশালী হয়ে তার পাশে থাকা উচিত। হ্যাঁ এতে হয়তো আপনার লাভ কম হবে কিন্তু আপনার বন্ধুত্বের পরীক্ষা তো হবে ।সে পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে পারলে অবশ্যই ভবিষ্যতে আপনি ভালো প্রতিদান পাবেন। আসুন আমরা সকল হতাশা ধরে ফেলে দিয়ে পরিবারের সাথে পথচলি ।

ধন্যবাদ সবাইকে

@abidatasnimora


break.png

banner-abb23.png

Authors get paid when people like you upvote their post.
If you enjoyed what you read here, create your account today and start earning FREE STEEM!
Sort Order:  

খারাপ সময়ে যে পাশে থাকে সেই তো আপনজন। খারাপ সময় আসবে যাবে তবে যারা থাকার তারা কিন্তু থেকে যাবে এই আপনার মতো। এটা অনেকর জন‍্যই শিক্ষা হয়ে থাকবে। এরপর থেকে আর হুটহাট করে ইনভেস্টমেন্ট করবে না। দারুণভাবে উপস্থাপন করেছেন এবং সুন্দর গুছিয়ে লিখেছেন আপু।।

আপনি একদম ঠিক বলেছেন বিপদ-আপদ ও খারাপ সময়ে পাশে থাকে সেই একান্ত আপনজন।

জি ঠিক বলছেন আপু ,মানব জীবনের কখনো সুখ ,আবার কখনো দু:খ আসবে প্রকৃতির নিয়ম ও সেই সৃষ্টিকর্তার দান এই বিষয়টা কেউ বদলাতে পারবে না।তেমনি আমাদের সবার প্রিয় দাদা ।আমাদেরকে নিস্বার্থ ভাবে আমাদের সাপোর্ট করে যাচ্ছে।তাই আমাদের উচিত দু:খ সময়ে দাদা সাথে থাকা।কারণ সেই প্রকৃত বন্ধু হয় ,যে সুখের সময় থাকে আবার দু:খের সময়ে থাকে।তাই আমি আছি ,থাকবে।আমি আশাকরি আমার বাংলা ব্লগে সকল বন্ধুরা আপনার সবাই থাকবেন।অনেক ধন্যবাদ ,এতে সুন্দর পোস্ট শেয়ার করার জন্য।

আমাদের জীবন সুখ দুঃখ নিয়েই তাই বলে নিজেকে বিচলিত করব, অস্থির করব তার কোন মানে হয় না।

জীবনে চলার পথে উথান-পতন হবেই। বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখভাগ হতে হবে। তাই বলে সমস্যার সমাধান নামকরে বসে থাকলে চলবেনা। সুখ দুখ সবকিছুই হাসিমুখের বরন করে নিতে হবে। স্টিমিটে এ সময় আমাদের ধৈর্য ধরতে হবে এবং কাজ চালিয়ে যেতে হবে। ভালো কিছু আশা করি।

এত সুন্দর মন্তব্য করার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

একদম সময়োপোযোগী একটা লেখা ছিল আপু। উত্থান পতন আসবে এটাই জীবনের নিয়ম। রাত গভীর না হলে কখনো ভোরের সূর্য টা দেখা পাওয়া যায় না। আমার বিশ্বাস খুব দ্রুতই হয়তো ভালো দিন আসতে চলেছে। আর তাড়াহুড়ো করে কোন সিদ্ধান্ত কখনো ভালো দিকে নিয়ে যায়। আমাদের দাদা যেখানে আমাদের সাথে আছেন, আমার মনে হয় না সেখানে আমাদের তেমন কোন বেগ পোহাতে হবে। তার উপর পূর্ণ আস্থা রেখে আমরা এগিয়ে যাব। এতে আমাদের সবারই মঙ্গল হবে।

আপনি ঠিক বলেছেন উত্থান-পতন আসবেই কিন্তু সেই সময় নিজের হাল খুব শক্ত করে ধরতে হবে। ধন্যবাদ আপনার মন্তব্যের জন্য।

আপু ঠিক বলেছেন,ধৈর্য ধরলে সব আস্তে আস্তে ঠিক হয়।আপনার লিখা গুলো পড়লাম।কিছুটা খারাপ হয়ে যদি ভালো হয়।তাহলে ভালোই হয়।কোন কিছুতেই হতাশ হলে চলবে না।ভালো ছিলো। ধন্যবাদ

যত কঠিন পথে আসুক না কেন ধৈর্য ধরলে সবকিছুই করা সম্ভব ধৈর্যের ফল মিষ্টি হয়।

সময়োপযোগী একটি পোস্ট করেছেন, এরকম একটি পোস্ট আমাদের দরকার ছিল, সবার কথা কি বলব আমি নিজেও দু-এক দিন পর্যন্ত বেশ হতাশ ছিলাম, হতাশা থেকে বের হয়ে এখন আবার কাজে মনোযোগ দিলাম, আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ চমৎকার পোষ্ট করার জন্য।

আমার মনে হলো বিষয়টি নিয়ে লেখা তাই লিখলাম ভাইয়া ধন্যবাদ আপনার মন্তব্যের।

আমি মনে করি। প্রতিটা জিনিসের উত্থান-পতন আছে এই উত্থান-পতনের পরে যদি ভালো কিছু হয় তাহলে সেই পতনই ভালো
আমিও আপনার সাথে একমত। অনেক ভাল লিখেছেন আপনি। স্টিমিটের এই খারাপ সময়ে আমাদের উচিত আরও বেশি বেশি কোয়ালিটি পোস্ট করে এর সাথে লেগে থাকা। বিটকয়েনের প্রাইস আপ হওয়ার সাথে সাথেই ইনশাল্লাহ এই পরিস্থিতির অবসান হবে। বাকিটা আল্লাহ্‌ ভরসা।

আপনি একদম ঠিক বলেছেন সবকিছুই উত্থান-পতন আছে তবে একদিন সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে।

আপনি একটি সৃজনশীল লেখা লিখেছেন। পড়ে খুবই ভালো লাগলো এবং অনেক উৎসাহ পেলাম। আপনার জন্য শুভকামনা রইল।

পোস্ট মনোযোগ দিয়ে পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।