আমার বাংলা ব্লগ কবিতা উদ্যোগ || অনু কবিতার আসর-০৮

in hive-129948 •  2 months ago 

Poem Cover-second.png

আমার বাংলা ব্লগের নতুন উদ্যোগ- অনু কবিতায় সবাইকে স্বাগতম জানাচ্ছি। এটা সম্পূর্ণ সৃজনশীল একটি উদ্যোগ, যেখানে সবাই নিজের ভেতরের প্রতিভাবে একটু ভিন্নভাবে ফুটিয়ে তোলার সুযোগ পাবে। নিজের মনের ভাবকে একটু ছন্দময় কিংবা সহজভাবে কাব্যিক রূপে প্রকাশ করতে হবে। বিষয়টি যেন আরো বেশী আকর্ষণীয় হয়ে উঠে সেই জন্য প্রতিদিন পাঁচজনকে $২.০০ ডলার করে মোট $১০.০০ ডলার এর ভোট দেয়া হবে। তবে যারা নিয়ম মেনে অংশগ্রহণ করবে পুরস্কারের ক্ষেত্রে তাদেরকে অগ্রাধিকার দেয়া হবে।

এবিবি-ফান এর মাধ্যমে প্রতি সপ্তাহের দুই দিন যথাক্রমে শুক্রবার ও রবিবার দুটি পোষ্ট শেয়ার করা হবে, যেখানে লেখকের পছন্দ অনুযায়ী ৪/৬ লাইনের অনু কবিতা সংযুক্ত থাকবে। তার সাথে কবিতা সম্পর্কে লেখকের অনুভূতি থাকবে, যাতে ইউজাররা কিছুটা আইডিয়া নিতে পারে কবিতার বিষয়বস্তু সম্পর্কে। তারপর ইউজারদের কাজ হবে অনু কবিতার লাইনগুলোর সাথে সামঞ্জস্য রেখে নিজের মতো করে আরো ৪/৬ লাইনের অনু কবিতা লেখা।

এখানে একটা বিষয় অবশ্যই স্মরণ রাখতে হবে, শব্দের জটিলতা কিংবা অর্থের গভীরতা নিয়ে অতিরিক্ত চিন্তা করতে হবে না বরং সহজভাবে আপনার মনের ভাবটাকে ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করতে হবে এবং কবিতার বিষয়বস্তুর প্রতি লক্ষ্য রেখে কবিতাটিকে পূর্ণতা দেয়ার চেষ্টা করতে হবে। আমরা কঠিন কিংবা দুর্বোধ্য শব্দ দেখবো না বরং আপনি কবিতাটিকে কতটা সুন্দরভাবে পূর্ণতা দেয়ার চেষ্টা করেছেন, সেটা দেখার চেষ্টা করবো। আশা করছি সবাই বিষয়টি বুঝতে পেরেছেন। আমার বাংলা ব্লগের কবিতা উদ্যোগে সকলের অংশগ্রহণ প্রত্যাশা করছি।

আজকের অনু কবিতাঃ

ভীষণ শূন্যতা নিয়ে যে হৃদয় ভাসে
সেই বেদনার সাগরে তুমি কেন এলে?
এখানে বারোমাস নোনাজলে
দুঃখের উৎসব হয় বিস্তীর্ণ আহ্লাদে,
পুবের হাওয়া হঠাৎ বিশ্বাসঘাতকতা করে,
এক শ্রাবণ তোমার জন্য কম পড়ে যাবে।

লেখকঃ

@blacks

লেখকের অনুভূতিঃ

ভালোবাসায় আসলে কোনো জয় নেই, নেই কোনো পরাজয়। আছে বিচ্ছেদ, একরাশ দুঃখ ভোগ। তবুও একটা বিশুদ্ধ প্রেমের জন্য মানুষ অপেক্ষা করে থাকে। তাই তো একজন ব্যর্থ প্রেমিক এক শ্রাবণ এর সম পরিমাণ চোখের জল কে ও কম প্রতিদান হিসাবে দেখছে, প্রিয়ার বিশ্বাসঘাতকতা বড় পীড়া দেয় প্রেমিক কে।

অংশগ্রহণের নিয়মাবলীঃ

  • উত্তরটি সর্বোচ্চ ৫০ শব্দের মাধ্যমে দিতে হবে।
  • একজন ইউজার শুধুমাত্র একবারই উত্তর দিতে পারবে।
  • অন্যের উত্তর কপি করা যাবে না।
  • উত্তর/কমেন্টটি অবশ্যই উপরের কবিতার সাথে সামঞ্জস্য রেখে করতে হবে।
  • এডাল্ট উত্তর/কমেন্ট দেয়া যাবে না।
  • পোষ্টটি অবশ্যই রিস্টিম করতে হবে।

ধন্যবাদ সবাইকে।

break .png
Banner Annivr4.png
break .png
Banner.png

আমার বাংলা ব্লগের ডিসকর্ডে জয়েন করুনঃডিসকর্ড লিংক

break .png

Authors get paid when people like you upvote their post.
If you enjoyed what you read here, create your account today and start earning FREE STEEM!
Sort Order:  

ভীষণ শূন্যতা নিয়ে যে হৃদয় ভাসে
সেই বেদনার সাগরে তুমি কেন এলে?
এখানে বারোমাস নোনাজলে
দুঃখের উৎসব হয় বিস্তীর্ণ আহ্লাদে,
পুবের হাওয়া হঠাৎ বিশ্বাসঘাতকতা করে,
এক শ্রাবণ তোমার জন্য কম পড়ে যাবে।

আজ সবের মাঝেও একাকী আমি পথ চলি,
বিস্তির্ণ মরুভূমিতে এক চিলতে মরীচিকা সম
তব দেখা পায়, এই চিত্ত মম
জানিনা এই তিমির কভু কী শেষ হবে?
হৃদয় নিঙরে দেখো, শুধু তোমারই নাম পাবে

ভালোবাসা বুঝি একেই বলে, দারুণ মিলিয়েছেন উপরের অংশের সাথে, সুন্দর হয়েছে।

অনেক ধন্যবাদ। 😊

বাহ বেশ ভালো লিখেছেন তো, আমার কিন্তু বেশ ভালো লাগলো।

তুমি ছিলে আমার জীবনে আনন্দের ভেলা
তাহলে কেন ছেড়ে গেলে আমায় এই আবেলা।
তুমি ছাড়া এ জীবন শুন্য মনে হয়
তোমার জন্য সাত সমুদ্র ছোট নদী মনে হয়।
তুমি ছিলে আমার জীবনে আশার আলো
বিরহ ব্যাথায় মনটা কয়লার মতো কালো।
প্রেমের শেষ পরিণতি এমনি বিষাদময়
বেঁচে থেকে কি লাভ ,মরণই সুখময়।

অসাধারণ লিখেছেন ভাই, মনে হচ্ছে পুরো কবিতাটি পূর্ণতা পেলো। কথার সাথে ছন্দ-মিলে হয়েছে সুন্দর কাব্য।

আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

এই ভাঙা হৃদয়ের গহীনে শুধু তুমি,
জোড়া লাগালে এক হব তুমি আর আমি।
শ্রাবণের ধারার মতো আমার চোখের নদী,
কিভাবে আছো তুমি স্থির উদ্যমী।
কতদিন যেন মন ভাঙ্গা একা শূন্যতা,
তুমি চাইলেই যেতে পারো এই মনের গভীরতা।

আরে দারুন হয়েছেতো, মনে হচ্ছে উপরের অংশের সাথে একেবারে মিলে মিশে একাকার হয়ে গেছে, খুব সুন্দর লিখেছেন।

দুঃখের জোয়ার ভরা ভালোবাসায়
তোমার আগমনী অপেক্ষায়...
যেখানে পবিত্র সম্পর্কগুলি বাসা বাঁধবে
শ্রাবনের বারিধারার মতো তীর বিদ্ধ হয়ে,
ক্লান্ত হৃদয় শুন্যতায় ঘেরা, বড়োই উদ্যমী
ভাঙা বিশ্বাসে তোমার মন বিফলতার আস্ফালি।।

সুন্দর হয়েছে আপু, ছন্দগুলো দারুণ লেগেছে আমার কাছে। কবিতার ছন্দে অনেকেই লিখছে দারুণ আনন্দে।

👍একদম ভাইয়া, আপনাদের কাছ থেকেই তো লেখার অনুপ্রেরণা পাই।🙏

ভীষণ শূন্যতা নিয়ে যে হৃদয় ভাসে
সেই বেদনার সাগরে তুমি কেন এলে?
এখানে বারোমাস নোনাজলে
দুঃখের উৎসব হয় বিস্তীর্ণ আহ্লাদে,
পুবের হাওয়া হঠাৎ বিশ্বাসঘাতকতা করে,
এক শ্রাবণ তোমার জন্য কম পড়ে যাবে।

আমারও শূন্য হৃদয় তাই এসেছি শূন্য হাতে
দুঃখের মাঝে উৎসব হবে অজানা এক প্রাতে
কান্নার নোনা জল , সেতো সাথী আজীবন
সাথে এনেছি শ্রাবন তুমি ভিজবে প্রতিক্ষন
করুক বিশ্বাসঘাতকতা পূবের হাওয়া
বিস্তীর্ণ ওপারে হবে দুজন দুজনাকে পাওয়া।

অনেক সুন্দর মিলিয়েছেন ভাই, কবিতা যেন পূর্ণতা পেয়ো গেলো। ধন্যবাদ

যে আমাকে ডাকবে না,
তাকেও আমি কখনো খুঁজবো না।
যে ডাকবে আমায় যতটুকু,
আমিও ধরা দেবো ততটুকু।
যে থাকবে আমার বিপরীত,
আমি থাকবো নাকো তার উপকৃত।
যে ডাকবে আমায় অতিরঞ্জন করে,
সে থাকবে আমার মনের ঘরে।

ভীষণ শূন্যতা নিয়ে যে হৃদয় ভাসে
সেই বেদনার সাগরে তুমি কেন এলে?
এখানে বারোমাস নোনাজলে
দুঃখের উৎসব হয় বিস্তীর্ণ আহ্লাদে,
পুবের হাওয়া হঠাৎ বিশ্বাসঘাতকতা করে,
এক শ্রাবণ তোমার জন্য কম পড়ে যাবে।

আমার হৃদয়ের গহীনে তোমারি বসবাস।
তোমার অপেক্ষায় থাকি সারা বছর মাস,
কবে তুমি আসবে বলো আমারই ঘরে।
ভাঙ্গা হৃদয়টা করে দিবে চাঙ্গা,
তাইতো আজও আছি আমি তোমারি অপেক্ষা।

ভীষণ শূন্যতা নিয়ে যে হৃদয় ভাসে
সেই বেদনার সাগরে তুমি কেন এলে?
এখানে বারোমাস নোনাজলে
দুঃখের উৎসব হয় বিস্তীর্ণ আহ্লাদে,
পুবের হাওয়া হঠাৎ বিশ্বাসঘাতকতা করে,
এক শ্রাবণ তোমার জন্য কম পড়ে যাবে।

আমি দিতে চাই তোমায়
পুরো শ্রাবণের অবারিত সুখ,
কেন তুমি ধরা দিলে
আমার এই শূন্য হৃদয়।
আমি তোমাকে কি করে বোঝাবো
আমার এ হৃদয় ভেঙ্গে কতটা হয়েছে ক্ষত,
এই ক্ষত হৃদয় তুমি শুধু পাবে
যন্ত্রণা আর লাঞ্ছনা।
আমি সইতে পারবো না তোমার এই কষ্ট
তুমি ফিরে যাও ফিরে যাও
আমাকে আমার শূন্যতা নিয়ে
কাটাতে দাও এ জীবন।

ভীষণ শূন্যতা নিয়ে যে হৃদয় ভাসে
সেই বেদনার সাগরে তুমি কেন এলে?
এখানে বারোমাস নোনাজলে
দুঃখের উৎসব হয় বিস্তীর্ণ আহ্লাদে,
পুবের হাওয়া হঠাৎ বিশ্বাসঘাতকতা করে,
এক শ্রাবণ তোমার জন্য কম পড়ে যাবে।

তবুও আকাশের দিকে তাকিয়ে বললাম
তুমি আমার আকাশ,তুমি কখনো হারাবে না।
প্রতিদিন তোমাকে ভেবে দিনের শুরু এবং শেষ হয়। তুমি প্রতিদিন আমার থাকবে।
আমার কাছে তুমি চিরনতুন। সেই, সেই,,
সেই তুমি,,,ভিশন শূন্যতায় যে অনির্বাণ শিখা।
♥♥

ভীষণ শূন্যতা নিয়ে যে হৃদয় ভাসে
সেই বেদনার সাগরে তুমি কেন এলে?
এখানে বারোমাস নোনাজলে
দুঃখের উৎসব হয় বিস্তীর্ণ আহ্লাদে,
পুবের হাওয়া হঠাৎ বিশ্বাসঘাতকতা করে,
এক শ্রাবণ তোমার জন্য কম পড়ে যাবে।

ভীষণ নিরানন্দ যে জীবন জুড়ে
বিষাদের সুর বাজাতে কেন এলে?
এখানে আমি আর আমার বিষাদ মন
সুখের আশা শুধুই বৃথা আস্ফালন।
বিষাদ জীবন হঠাৎ চরম নাটকীয়তার ঘোরে,
দুঃখের ঘন মেঘ যেন আছড়ে পরে যাবে।

বিশাল আকাশের মাঝে যে হৃদয় ভাসে
সেই আকাশের মাঝে রংধনু কেন সাজালে?
হাজার তারার ভীড়ে-জোসনার আলোর আড়ালে
সুখের অভিনয়ে- রাত কাটে রূপকথার গল্প শুনে,
বর্ষার অবিশ্রান্ত জলের শীতলতায় আমি ক্লান্ত
নির্জীব হৃদয়ের বাসনা হতে চায় না আর শান্ত।

অসাধারণ লিখেছেন ভাইয়া,নির্জীব হৃদয়ের বাসনা শান্ত হোক এটাই কাম্য।

তুমি কেন এলে আমার শূন্য এ জীবনে
তুমি কেন ফুল ফুটালে ভালবাসার বাগানে।
তুমি কেন চলে গেলে আমাকে ফেলে
তুমি কেন ফুল গুলো অকালে জড়ালে।
তুমি ছিলে যখন জীবন ছিল আমার মধুময়
তুমি ছাড়া এখন জীবন আমার ধুধু মরুময়।

আমার এই দুঃখের দিনে
তুমি ভুলেছ আমায়,
আমিও ভালবাসতে চাই
কি করে বাসব এত কষ্ট বেদনার মাঝে।

আমি জানি যতই আমি ভাসি
দুঃখের এই সাগরে,
তুমি রাখবে আমায়
দূরে নিজের থেকে অনেক দূরে।

  • কিছু কথা বলতে গিয়েও বলা হয় না মুখে
    কিছু দুঃখ প্রকাশ পায় না , জমতে থাকে বুকে।
    হঠাৎ করে কষ্ট গুলো মনের কোণে এলে
    সবার থেকে একা করে মনেই রাখি আগলে ...
    জমানো সেই দুঃখের কথা ,
    ভালোবাসার স্রোতে মাঝে মাঝে জেগে উঠে চায় যে আপন হতে।
    মনের ভিতর কষ্ট তোলে ছলাক্ ছলাক্ ছল
    এদের নিয়েই তৈরী হল আমার চোখের নোনা জল ...

পূবের দক্ষিণ হাওয়া কানে কানে ফিসফিস করে বলে যায়,
তুমি নেই পাশে।
অনেক শূন্যতা ভর করে হৃদয় মাঝে
বর্ষার বাদল ধারায়,
আমি খুজেঁ ফিরি তোমাকে।
রূপসাগরের অথৈই সাগরে,
তুমি এক ফোটাঁ জল হয়ে,
কেন আমার জীবনে এলে?

নাইবা ঘুমালে প্রিয় রজনী এখনো বাকি
প্রদ্বীপ নিভিয়া যাক, জেগে থাক দুটি আঁখি।
বলার জন্য নাই গো আমি, শোনার জন্য আমি
সুখের ঘরের নইগো আমি,আধার ঘরের বাতি।

আমার ভাঙ্গা বুকে তোমার যে আনাগোনা
হ্রদয়ের গহিনে গরে তোলে স্বপ্ন কনা.
তুমি যে আমার নয়নেৱ নয়ন
ভুলিতে পারবো না তোমায় জীবন ও মরন.

বাহ! সুন্দর মিলিয়েছেন তো, কথাগুলোও ভালো ছিলো।

ধন্যবাদ আপনাকে।

ভীষণ শূন্যতা নিয়ে যে হৃদয় ভাসে
সেই বেদনার সাগরে তুমি কেন এলে?
এখানে বারোমাস নোনাজলে
দুঃখের উৎসব হয় বিস্তীর্ণ আহ্লাদে,
পুবের হাওয়া হঠাৎ বিশ্বাসঘাতকতা করে,
এক শ্রাবণ তোমার জন্য কম পড়ে যাবে।

যে থাকার সে এমনিতেই থাকবে
হয়তো দুঃখের সাগরে
সে পাল তোলা নৌকা হয়ে
দুজনকে ভাসানোর স্বপ্ন দেখাবে
ভালোবাসা গুলোতো এমনই
ঝড় ঝাপটাতেও আঁকড়ে থাকে ।।

অঝোর ধারায় ঝরছে আমার হৃদয়
তবুও তোমাকেই ভালোবাসতে ইচ্ছা করে।
ইচ্ছা করে ওই নীল সাগরের বুকে,
তোমাকে নিয়ে ভেসে বেড়াই।
আমার হৃদয়ের শূন্যতা ভরিয়ে দিয়ে,
তুমি কি আসবে আমার সাথে ?

দারুণ লিখেছেন, প্রিয়জনকে নিয়ে ভেসে বেড়ানোর জন্য কিন্তু ডানা লাগবে ভাইয়া।হি হি

হা হা হা একটা পরীকে প্রিয়জন বানাতে হবে, তাহলে আর ডানা নিয়ে ভাবতে হবে না।

🧚‍♂️🧚‍♂️

পাঠিয়ে দিন

এইতো দিলাম ভাইয়া,☺️

পাসপোর্ট মনে হয় নাই, বর্ডারে আটকে গেছে।

🤭😃

ভীষণ শূন্যতা নিয়ে যে হৃদয় ভাসে
সেই বেদনার সাগরে তুমি কেন এলে?
এখানে বারোমাস নোনাজলে
দুঃখের উৎসব হয় বিস্তীর্ণ আহ্লাদে,
পুবের হাওয়া হঠাৎ বিশ্বাসঘাতকতা করে,
এক শ্রাবণ তোমার জন্য কম পড়ে যাবে।

হেথায় চৈত্রের খরা কাঁদায় মৃদু বেগে
এখানে মরুভূমির উত্তপ্ত বালিরাশি বাতাসে দোলে,
হৃদয় টা স্পর্শকাতর একটু বৃষ্টির ছোঁয়া পেতে
যে ছোঁয়া তোমার অনুপস্থিতিতে ও গায়ে লেগে থাকে।
কল্পনারা এত সুন্দর কেন প্রিয়,
তাতে কি, আমায় ধোকা তো দেয় না কভু।।

হৃদয়ের খুব গভীরে বড় যত্নেই ছিলে তুমি
তোমাকে পাওয়ার স্বপ্নে বিভোর ছিলাম আমি।।
বুঝতে পারিনি তোমার মনে লুকানো ছলচাতুরী
অভিনয়ে করে বার বার তুমি করেছ লুকোচুরি।।
কতবার কেঁদেছি আমি ভেবে তোমার কথা
মিছে স্বপ্নের মায়াজালে দিয়েছ আমায় ধোঁকা।।
তবুও চাই ফিরে এসো তুমি আমার হৃদয় জুড়ে
উড়ে যাওয়া পাখিটা আবার ফিরুক তার নীড়ে।।

-আজকের অনু কবিতা-

ভীষণ শূন্যতা নিয়ে যে হৃদয় ভাসে
সেই বেদনার সাগরে তুমি কেন এলে?
এখানে বারোমাস নোনাজলে
দুঃখের উৎসব হয় বিস্তীর্ণ আহ্লাদে,
পুবের হাওয়া হঠাৎ বিশ্বাসঘাতকতা করে,
এক শ্রাবণ তোমার জন্য কম পড়ে যাবে।


সংযোজন

ভীষণ শূন্যতা নিয়ে যে হৃদয় ভাসে
সেই বেদনার সাগরে তুমি কেন এলে ?
এলেই যদি তবে কেন আবার ফিরে চলে গেলে।।
তোমার আগমনে ভেবেছিলাম ভরে উঠবে আমার এই শূন্য হৃদয়,
কিন্তু কিছু সময় নিজ স্বার্থের জন্য অতিবাহিত করে আমার চুরি করে একেবারে চিরতরে নিলে বিদায়।।
আমি এখন চাতক পাখি শুধু চেয়ে চেয়ে থাকি,
হঠাৎ করে কখনো যদি ফিরে আসো জ্বালাবো মোমের বাতি।।
কিন্তু দেখা পাইনা তোমার শত লোকের ভিড়ে,
দেখা দিয়ে চিরতরে কোন দেশে তুমি গেলে।।
পাখির মত বাকনা যদি থাকতো আমার শরীরে,
তন্ন তন্ন করে খুঁজতাম তোমায় সারা বিশ্বব্রহ্মাণ্ডে।।

ভালোবাসা মানে তোমার প্রতীক্ষা
ভালোবাসা মানে হৃদয়ে শূন্যতা
ভালোবাসা মানে মিথ্যে অভিনয়
ভালোবাসা মানে না পাওয়ার যত গল্প
ভালোবাসার মানে দু চোখের নোনা জল
ভালোবাসা মানে অদৃশ্য এক মায়ার শিকল।

ভীষণ শূন্যতা নিয়ে যে হৃদয় ভাসে
সেই বেদনার সাগরে তুমি কেন এলে?
এখানে বারোমাস নোনাজলে
দুঃখের উৎসব হয় বিস্তীর্ণ আহ্লাদে,
পুবের হাওয়া হঠাৎ বিশ্বাসঘাতকতা করে,
এক শ্রাবণ তোমার জন্য কম পড়ে যাবে।

ভাসবে তুমি অশ্রুর নোনাজলে
জ্বলবে বেদনার তীব্র দহনে
বার বার ক্ষত বিক্ষত হবে
তার স্মৃতির আঘাতে
কেন তুমি এসেছিলে
চোখের জলে আমাকে ভাসাতে।

ভীষণ শূন্যতা নিয়ে যে হৃদয় ভাসে
সেই বেদনার সাগরে তুমি কেন এলে?
এখানে বারোমাস নোনাজলে
দুঃখের উৎসব হয় বিস্তীর্ণ আহ্লাদে,
পুবের হাওয়া হঠাৎ বিশ্বাসঘাতকতা করে,
এক শ্রাবণ তোমার জন্য কম পড়ে যাবে।

দুঃখ এখন আমার স্রোতের থেকে তীব্র
এই দুঃখে জীবন যে লাগে বিষন্ন।
এই বিষন্নতা জীবনকে করেছে শূন্য
তোমার অভাবের এই শূন্যতা কি করে হবে পূর্ণ?

ক্ষত-বিক্ষত করেছো এ হৃদয়,হৃদয় মাঝে হাহাকার
বিচ্ছেদ যন্ত্রণা ভুলতে যেতে হবে পরপার।
বিক্ষত হৃদয় নিয়ে তোমার পানে দাঁড়াই,এক্টু ভালোবাসা দাও
কিন্তু...!তোমার হৃদয় কখনো ভারোবাসে নি,
দিয়েছে শুধু এক আকাশ সমান দূরত্ব,আর এক সমুদ্র লোনাপানি

চলে যদি যাবে তাহলে কেন এসছিলে
কি দরকার ছিল বল এসবের,
চোখে ছিল স্বপ্ন, ছিল ভালবাসা আর
তোমাকে কাছে পাওয়ার তীব্র আকাঙ্ক্ষা,
এক নিমিষেই সব ভুলে চলে গেলে।
এখন আমি তোমাকে নিয়ে সারাক্ষণ
ভাবতে ভাবতে দুই চোখে ভাসায় নোনা জলে!!!