এবিবি-ফান প্রশ্ন-৬০ || শ্বশুরবাড়ি মধুর হাঁড়ি কেন?

in hive-129948 •  2 months ago 

Fun_Cover-4.png

আমার বাংলা ব্লগের নতুন উদ্যোগ- এবিবি-ফান এ সবাইকে স্বাগতম জানাচ্ছি। এটা সম্পূর্ণ ভিন্নধর্মী একটি উদ্যোগ, শুধুমাত্র ভিন্নভাবে কিছু বিষয় নিয়ে আনন্দ উপভোগ করার জন্যই করা হয়েছে। বিষয়টি যেন আরো বেশী আকর্ষণীয় হয়ে উঠে সেই জন্য প্রতিদিন পাঁচজনকে $২.০০ ডলার করে মোট $১০.০০ ডলার এর ভোট দেয়া হবে। তবে অবশ্যই যারা নিয়মগুলো মেনে এই উদ্যোগের সাথে সংযুক্ত হতে হবে।

এবিবি-ফান এর মাধ্যমে প্রতিদিন একটি প্রশ্ন শেয়ার করা হবে, বাস্তব বিষয় নিয়ে যা প্রতিনিয়ত আমরা আমাদের চারপাশে দেখে থাকি। তারপর সে প্রশ্নের উত্তরটি একটু ভিন্নভাবে দিতে হবে। আমরা প্রশ্নটির সঠিক উত্তর জানতে আগ্রহী নই কিংবা সঠিক উত্তরটি জানতে চাই না। বরং প্রশ্নটির ভিন্ন ধরনের এবং মজার কিছু উত্তর জানতে চাই। সুতরাং যে প্রশ্ন করা হবে, সেই প্রশ্ন সম্পর্কে আপনার নিজের ক্রিয়েটিভিটি, সৃজনশীলতা এবং মজার চিন্তা ভাবনা জানাতে হবে, যার ক্রিয়েটিভিটি যত বেশী আকর্ষণীয় ও মজার হবে, সে বিজয়ী হওয়ার ততো বেশী সম্ভাবনা তৈরী করতে পারবে। যেমন, প্রশ্ন করা হলো আকাশের রং কেন নীল? উত্তরগুলো এই রকম হতে পারে, আকাশের বউয়ের মন খারাপ, আকাশের বান্ধবীর পছন্দের রং নীল, এই রকম মজার মজার নানা ধরনের উত্তর দিতে পারবেন আপনারা। আশা করছি সকলের অংশগ্রহণে উদ্যোগটি সফলতা পাবে।

আজকের প্রশ্নঃ

শ্বশুরবাড়ি মধুর হাঁড়ি কেন?

প্রশ্নকারীঃ

@blacks

প্রশ্নকারীর অভিমতঃ

শ্বশুরবাড়ি তে মৌমাছি বেশি কিন্তু মধু খাওয়ার লোক কম। তাই জামাই যখন আসে প্রচুর মধু পেয়ে যায়।

অংশগ্রহণের নিয়মাবলীঃ

  • উত্তরটি সর্বোচ্চ ৫০ শব্দের মাধ্যমে দিতে হবে।
  • উত্তর বা কমেন্টটি এডিট করা যাবে না।
  • একজন ইউজার শুধুমাত্র একবারই উত্তর দিতে পারবে।
  • অন্যের উত্তর কপি করা যাবে না।
  • উত্তর/কমেন্টটি অবশ্যই মজার হতে হবে।
  • এডাল্ট উত্তর/কমেন্ট দেয়া যাবে না।
  • পোষ্টটি অবশ্যই রিস্টিম করতে হবে।

ধন্যবাদ সবাইকে।

break .png
Banner Annivr4.png
break .png
Banner.png

আমার বাংলা ব্লগের ডিসকর্ডে জয়েন করুনঃডিসকর্ড লিংক

break .png

Authors get paid when people like you upvote their post.
If you enjoyed what you read here, create your account today and start earning FREE STEEM!
Sort Order:  

শ্বশুর বাড়িটা ছেলেদের হলে তবেই সেটা মধুর হাঁড়ি। কারণ মেয়ের বাবা আপ্যায়ন করে এটা ভেবেই যে, "জামাই বাবাজীবন! তুমি একজন বীর পুরুষ। আমাদের বাড়ির অ্যাটম বম্ব কে তুমি সামলাচ্ছো। তাই ভালো মন্দ খাওয়া, আদর যত্ন তোমার প্রাপ্য। "

হা হা হা হা এ্যাটম বোমের যে কি যন্ত্রনা সেটা যে সামলায় সেই কেবল বুঝে, দারুণ উত্তর দিয়েছে। হি হি হি

ধন্যবাদ আপনাকে। ☺

আহারে প্রতিটা শ্বশুর বাড়ির লোক যদি এভাবে চিন্তা করত তাহলে তো ভালোই হতো

শশুর বাড়ি মধুর হাঁড়ি,
যদি জামাইয়ের টাকা থাকে ভুঁড়ি ভুঁড়ি।
টাকা যদি না থাকে ,
তাহলে জামাইয়ের কপালে ঝাঁটার বারি।

ভাই উত্তর দিলেন নাকি ভয় দেখাইলেন, টাকা ছাড়া শ্বশুড় বাড়ি যাওয়া যাবে না দেখছি।

হ্যাঁ ভাই

যে সকল শ্বশুরবাড়িতে শালী নামক মধুর চাক আছে শুধুমাত্র সেই বাড়ির ক্ষেত্রেই "শ্বশুরবাড়ির মধুর হাড়ি" এই কথাটা প্রযোজ্য। কারণ একমাত্র শালীর হাতেই থাকে মিষ্টি মধুর ছোঁয়া। তা না হলে বউ নিয়ে গেলে তো সব জায়গায় ঝামেলা, সে হোক শ্বশুরবাড়ি অথবা বাপের বাড়ি।

শ্বশুর বাড়ি মধুর হাড়ি কারণ শ্বশুর সাহেব বিয়ের সাথে সাথেই তো মধুর চাকটা জামাইবাবুকে দিয়ে দেয়। আর হাড়িটা নিজের বাসায় রেখে দেয়, যাতে করে জামাইবাবু বারবার তার মেয়েটাকে নিয়ে আসে।😄😄😄😄😄😄

শ্বশুর বাড়ি মধুর হাঁড়ি,,,কারণ,,,শ্বশুর বাড়ির মানুষজন খুব ভালো করে জানেন ,তাদের বাড়ির কালবৈশাখী ঝড় কে তাদের মেয়ের জামাই ছাড়া অন্য কেউ সামলাতে পারবেনা,,,,তাই জামাই শ্বশুর বাড়িতে আসলে সবাই অনেক যত্ন করে জামাইকে ভালো ভালো খাবার খাওয়ায়। যেন তাদের কালবৈশাখী ঝড় সামলাতে জামাই এর কষ্ট না হয়।

কারন শ্বশুরবাড়ির হাড়ির স্বাদ আর অন্য কোনো হাড়িতে পাওয়া যায় না। জামাই আদর বলে কথা, জামাই হলেই তা হাড়ে হাড়ে টের পাওয়া যায়।যতক্ষণ না পর্যন্ত খেতে খেতে জামাইয়ের পেটের গণ্ডগোল হয়ে মুখ থেকে মধু না বের হয় ততক্ষণ পর্যন্ত জামাই আদর চলতেই থাকে।তাই বলে ঘরজামাই হওয়া থেকে সাবধান।।

শ্বশুরবাড়ি মধুর হাঁড়ি কেন?

কেমনে বলব দাদা আমি সিঙ্গেল এখনো শ্বশুরবাড়ি যায়নি। জানিই নি আমার শ্বশুরবাড়ি কোথায়। তবে হ‍্যা আমার বাবার শ্বশুরবাড়িটা কিন্তু আমার জন্য মধুরহাড়ি হি হি।।

শ্বশুর বাড়ি মধুর হাড়ি এটা কোন ভাবে ঠিক না, শালিরা মধুর মধুর কথা বলে পকেট ফাঁকা করা নিয়ে ব্যস্ত থাকে।

শ্বশুরবাড়িতে সব কিছু মিলিয়ে যে সুন্দর সময় কাটে সেটা অবশ্যই মধুময়। সে হাঁড়িতে থাকে শ্বশুর, শাশুড়ির আদর ,শালা ও শ্যালিকাদের সঙ্গে আড্ডা । সে হাঁড়িতে শালা বৌকেও নিতে পারেন।তবে ভুল করে সেখানে শ্যালিকার অধর সুধা প্রবেশ করাবেন না। তাহলে সে হাঁড়ি উপচে গরল বের হলেও বেরতে পারে।

ঘরে বউ রেখে শালীর দিকে নজর দিলে শশুর বাড়ি মধুর হাঁড়ি হয়ে যায়। তাই মধু খেতে গিয়ে মৌমাছির কামড় না খাওয়াই ভালো।
😅😅

আবু জাদা সালে থাকায় তাদের কেন মধুর হাড়ি?

বর্তমানে শাশুড়িরা জামাইকে এত আপ্যায়ন করে,যার কারনে নিজের মার থেকে শাশুড়িকে বেশি গুরুত্ব দেয়।কারণ জামাইরা মনে করে শশুড় বাড়ি গেলে সুখ আর সুখ অথ্যাৎ মধুর হাড়ি।কিন্তু বেশিদিন শশুড় বাড়ি বেড়ালে বা ঠিকমত টাকা পয়সা ভাংগতে না পারলে যে, মধু তেতুল হয়ে যাবে সেটা অবশ্য পরে টের পায়।হা হা হা।

আরে ভাই এজন্য তো বলে শ্বশুর বাড়ি মধুর হাড়ি নিত্তি গেলে ঝাটার বাড়ি।

হা হা ঠিকই বলেছেন আপু।

শ্বশুরবাড়ি মধুর হাঁড়ি কেন?

শ্বশুরবাড়ি মধুর হাঁড়ি বলতে আমি বুঝি, শশুর শাশুড়ীর নিরব ভালোবাসা। আর খাওয়া দাওয়ার কোন শেষ নেই।

ছেলেদের জন্য এটি। কারণ ছেলেদরে জন্য খালি খাওন আর খাওন। আর মেয়েদের জন্য শশুর বাড়ি জমের বাড়ি। খালি কাম করন আর করন। 🥴🥴🥴

কেমনে কি? কোথা হতে কোথা গেলেন, আইজ বাড়ি যাইয়া লই বউকে জিগামু সত্যটা কি, হি হি হি।

ঠিকই তো ভাইয়া। আপনারা শশুর বাড়ি যান আপনাদের সেইভাবে আপ্যায়ন করা হয়। আর আমরা শ্বশুর বাড়ি গেলে? আর বললাম না 🤓😵‍💫

শ্বশুর বাড়ি মধুর হাড়ি
নিছক মিছা কথা,
সারা জীবন পেয়ে গেলাম
নানা রকম ব্যথা।

শালা-শালি ননদ দেবর
এরাই মধুর হাড়ি,,
খুশিমনে ভালই থাকে
নইলে যে দেয় আড়ি।
♥♥

শশুর বাড়িতে অনেক মৌমাছি থাকে, পিছনে লাগার জন্য। মৌমাছি থাকলে তো মধু থাকবে।আর মধু থাকলে হাঁড়িও থাকবে। এজন্য শশুর বাড়ি মধুর হাঁড়ি।

কিসের কি শুধুই দেখলাম তরকারির হাড়ি, মধুর হাড়ির হদিসই পেলাম না। সব মিছা কথা, এক ফোঁটাও সত্যি না, হি হি হি।

শ্বশুর বাড়ি গেলে জামাইকে তো আর কস্ট করে বাজার করতে হয় না। কিন্তু মজার মজার রান্না করে শ্বাশুড়ি ঠিক ই জামাইকে খেতে দেয়। তাই মধুর হাড়ি। কারন হাড়িতে মজার মজার খাবার রান্না করা থাকে। 😋😋কেন যে জামাই হলাম না। 🤣😅😰

যদিও বিয়ে করিনি তাই এই বিষয়ে অভিজ্ঞতা অনেক কম তবে। শ্বশুরবাড়িতে শালি থাকে, (বউ এর ছোট বোন) তাই সেটা মধুর হাড়ি বলে মনে হয়।

শ্বশুরবাড়ি মধুর হাঁড়ি কেন?

প্রথম প্রথম মধুর হাঁড়ি ছিল এখন তো যাই দেখি তাই অন্ধকার লাগে ।

জামাই এরা শ্বশুরবাড়িতে গেলে খাওয়া-দাওয়া শেষ থাকে না। শ্বশুরবাড়ি সহ আশপাশের আত্মীয়স্বজনরাও জামাইকে আদর আপনের জন্য বিশেষ বিশেষ খাবার ও সেবা যত্ন আয়োজন করেন। এজন্যই "শশুর বাড়ি মধুর হাড়ি।"

অনেক চমৎকার একটি উত্তর দিয়েছেন অনেক বেশি ভালো লেগেছে ধন্যবাদ আপনাকে ভালো থাকুন

ছেলেদের শশুর বাড়িতে মধুতে ভরপুর,আর মেয়েদের শশুর বাড়িতে চিরতার পানিতে ভরপুর।😜😜।

কথাটা তো ছেলেদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। শশুর বাড়ি গিয়ে পায়ের উপর পা তুলে শুধু খায় আর খায়।😋
শশুর, শাশুড়ি, শালা, শালী সবাই প্লেটে তুলে দেয়।এত আরামে খাইলে মধুর হাড়ি হইবো না তো কি হইবো,,,,,

এতোদিন জানতাম মামার বাড়ি রসের হাড়ি, এখন দেখছি শ্বশুর বাড়িও মধুর হাড়ি হয় 🤭। শ্বশুরের এতো এতো মধুর চাক, এগুলো জামাই ছাড়া খাওয়ার মানুষ কই 😁। জামাই সাহেব সবসময় আদর বেশি পায়

হুম যা জানতেন সব ভুল ছিলো, নতুন করে আবার জানুন হা হা হা।

শশুর বাড়ির মধুর হাড়িটা শুধু জামাইয়ের জন্যই রাখা হয় কারন মেয়েটা যে জামাইয়ের কাছে রাখা আছে।হি হি হি।

শুধু মাত্র শালি দের জন্য।যে এর বিরোধীতা করবে আমি তার সাথে বিতর্কে যেতে রাজি আছি। যার শালি নাই তার শ্বশুর বাড়ি আর নিজের বাড়ি সমান।শালির আদর,যত্ন আর খুবশুটির জন্যই শ্বশুরবাড়ি মধুর হাড়ি।(আমার বউ যেন,না জানে)

ঘোড়ার ডিম ভাই, উল্টো পকেট পুরাই ফাঁকা হয়ে যায়, মধুর হাড়ি টাড়ি কিচ্ছু নাই, হি হি হি

দুনিয়ায় কিছুই তো ফ্রি না ভাই।কষ্ট করলে তবে না কেষ্ট মেলে।হাহাহাহাহাহা

এই ক্ষেত্রে কেষ্টর জ্বালাটাই বেশী থাকে ভাই

হাহাহাহাহাহা।তখন শালির আদর টা মলমের কাজ করে।

ভাই চমৎকার একটি উদাহরণ দিয়েছেন ব্যাচেলর লোকেরা আপনার সাথে একমত।

শালিকা থাকার জন্য, তবে বউ জানলে খবর আছে......... হা হা হা হা

শশুর বাড়িতে গেলে ভালো ভালো খাবার খেতে পাওয়া যায় তাই শ্বশুরবাড়িতে মধুর হাড়ি বলা হয়

মৌমাছির অনেকগুলো চাক সেখানে ছিলো তাই অনেক মধু জমে থাকে সেখানে। 🤪

ভালো ভালো খাবার খেতে পারে আর সবাই খাওয়াতে বেশি পছন্দ করে, তাই শ্বশুরবাড়ি মধুর হাড়ি।

শশুর বাড়ির লোকজন জামাইয়ের জন্য খুব যত্ন সহকারে সুন্দরভাবে সুস্বাদু এবং মজাদার খাবার তৈরি করে । জামাইয়ের পছন্দের খাবার তৈরি করতে তারা শতভাগ প্রচেষ্টা চালায়।এইজন্য বলা হয়ে থাকে শ্বশুর বাড়ি মধুর হাড়ি।

শাশুড়ি মা রান্না করার আগে হাঁড়িতে মধু মাখিয়ে রাখে এই জন্য শ্বশুর বাড়ি মধুর হাড়ি বলা হয়।