কাতলা মাছের কালিয়া

in hive-120823 •  2 months ago  (edited)

IMG_20220925_160109.jpg

(তৈরি কাতলা মাছের কালিয়া)

বন্ধুরা,
আশাকরি আপনারা সবাই ভালো আছেন।
আমরা জানি বাঙালিদের মাছ আর ভাত এই দুটো প্রতিদিনের রুটিনে থাকবেই। তাই বাঙালিরা সাধারণত ভোজন রসিক হয়।
মাছ আমাদের ঘরে প্রায়শই হয়ে থাকে।
আর রান্নাটি বাড়িতে আমিই করি। আমি কিন্তু মাছ খেতে ভালো বাসি কিন্তু সব মাছ নয় কিছু কিছু মাছ আমার খুব প্রিয়।
তাই আপনাদের মাঝে আমি আজও একটি মাছ রান্নার পদ্ধতি নিয়ে এসেছি যেটা আমি সাধারনত বাড়িতে তৈরি করি।
রান্নাটি হল কাতলা মাছের কালিয়া।

IMG_20220925_160010.jpg

(কাতলা মাছ)

কাতলা মাছের উপকারিতা:-
1)কাতলা মাছ বায়ু পিত্ত ও কফ কমায় কিন্তু শক্তি বাড়ায়।
2)আমরা অনেকেই জানি পিত্ত বৃদ্ধি পেলে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা দেখা দেয়।আর গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা মানুষের দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। নিয়মিত কাতলা মাছ খেলে পিত্ত ও কফ কমায়।ফলে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা দূর করা সহজ হয়।
3)যাদের বয়স বৃদ্ধি পাচ্ছে তাদের শক্তি হ্রাস পায়। এই শক্তি পূরন করার জন্য নিয়মিত কাতলা মাছ খাওয়া দরকার।
4)এই মাছ আপনার শরীরের শক্তি বৃদ্ধিতে কার্যকরি ভূমিকা পালন করে।
5)কাতলা মাছের শরীরে থাকা ‘ওমেগা থ্রি’ ফ্যাটি এসিড দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।

চলুন তাহলে যেনে নেওয়া যাক মাছ রান্নার পদ্ধতি

উপকরনঃ-

1)কাতলা মাছ(Katla fish)=৫০০গ্রাম

2)পেয়াজ(Onion)=১টা বড়ো সাইজের ঝিড়ি করে কুঁচান।

3)আদাবাটা(Ginger paste)=২চা চামচ

4)রসুনবাটা(Garlic paste)=১চা চামচ

5)জিরে বাটা(cumin powder)=১চা চামচ

6)নুন(Salt)= স্বাদ মত

7)টমেটো সস=২চা চামচ

8)কাঁচালঙ্কা(green chili paste)=২চা চামচ

9)চিনি(Sugar)= স্বাদ মত

10)গোটাজিরে(cumin)=১/২চা চামচ

11)সরষেরতেল(Mustard oil)=পরিমান মত

পদ্ধতিঃ-

1)প্রথমে একটি পাত্র নিয়ে তার মধ্যে মাছ গুলো ভালো করে ধুয়ে নিতে হবে।

2)তারপর মাছে ভালোকরে নুন, হলুদ মাখিয়ে কিছুক্ষণ রাখতে হবে।

IMG_20220925_160024.jpg

(মাছে নুন হলুদ মাখানো)

3)এবার কড়াইটি গ্যাসে মাঝারি আঁচে বসিয়ে দিতে হবে।

4)কড়াই গরম হয়ে গেলে তার মধ্যে তেল দিতে হবে।

5)তেলটি গরম হলে মাছগুলো এক এক করে ভেজে নিয়ে একটা পাত্রে নামিয়ে রাখতে হবে।

IMG_20220925_155956.jpg

(মাছ ভাজা)

6)তারপর বাকি তেলটির মধ্যে আরেকটু তেল দিয়ে গোটা জিরে সম্বার দিতে হবে।

7)এবার কুঁচানো পেঁয়াজ গুলো তারমধ্যে দিয়ে একটু ভেজে নিতে হবে।

IMG_20220924_231724.jpg

(পেয়াজ ভাজা)

8)তারপর তারমধ্যে আদাবাটা, জিরেবাটা, রসুনবাটা,টমেটো সস দিয়ে একটু নেড়ে চেড়ে নিয়ে।

9)এরপর তারমধ্যে নুন, হলুদ ও একটু চিনি দিয়ে শেটা ভালোকরে কিছুক্ষণ কষাতে হবে।

IMG_20220925_160050.jpg

(সোয়াবিন আর আলু দিয়ে কষানো)

10)মশলাটা ভালোকরে কষেগেলে তার মধ্যে থেকে যখন একটু তেল বেরিয়ে আসবে।

11)এবার পরিমাণ মত গরম জল দিয়ে তারমধ্যে মাছ গুলো দিয়ে দিতে হবে। তারপর সেটা ১০মিনিট ঢাকনা দিয়ে ঢেকে রাখতে হবে।

IMG_20220925_160138.jpg

(গরম জল দেওয়া)

12)১০মিনিট বাদে ঢাকনাটা তুলে তার মধ্যে গুরো গরমশলা দিয়ে পাএে নামিয়ে পরিবেশন করুন।
আজ এখানেই আমার রান্না শেষ করলাম। ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন। শুভরাএি.

Authors get paid when people like you upvote their post.
If you enjoyed what you read here, create your account today and start earning FREE STEEM!
Sort Order:  

সবাই কি এখন বাড়িতে কাতলা মাছ কিনে আনছে? এই জন্যই কাতলা মাছের দাম বেড়ে চলেছে, এতদিন কারণটা বুঝিনি কিন্তু এইবার বুঝলাম। খুব সুন্দর রান্না আপনার, গুনবতী মহিলা আপনি।

Loading...

গরম মশলার কথা রান্নার পদ্ধতিতে পেলাম কিন্তু উপকরন পড়ে খুঁজে পেলাম না, নিজের লেখাটা পোস্ট করবার আগে এবং পরে পরে নিয়ে পোস্ট করলে ভুল কম হয়। সব কাজ তাড়াহুড়ো করে করা যায় না।